যশোরে ‘ওমিক্রন’ শনাক্ত:থেমে নেই মেলা

এবিসি নিউজ>এবিসি নিউজ>
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  11:28 AM, 15 January 2022
প্রতিকী ছবি

খুলনা বিভাগের ১০ জেলার সর্বপ্রথম ওমিক্রন যশোর জেলায় শনাক্ত হয়েছে। সেই সাথে করোনার উর্ধমুখী সংক্রমণের কারণে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে যশোর। ইতিমধ্যে যশোরকে ইয়োলো জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

যশোরে তিন দিনে ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে গত বুধবার যবিপ্রবি জিনোম সেন্টারে (১২ জানুয়ারি) ২৮ জন করোনা পজিটিভ এবং ওমিক্রন শনাক্ত হয় ৩ জনের শরীরে। বৃহস্পতিবার যবিপ্রবি জিনোম সেন্টারে ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এছাড়া ভারত ফেরত বাংলাদেশির শরীরে বেনাপোল স্থলবন্দর থেকে করোনা পজিটিভ হয়। ফলে করোনার দ্রুতগতির সংক্রমণ নিয়ে উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে গোটা জেলায়। যদিও এ পরিস্থিতির মধ্যেও যশোর পুলিশ ক্লাব মাঠে রমরমাভাবেই চলছে তাঁত বস্ত্র, হস্ত ও কুটির শিল্প-২০২১ নামে মেলা।

এদিকে স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসন ও সিভিল সার্জনের পক্ষ থেকে জেলা শহর ছাড়াও বিভিন্ন উপজেলায় মাইকিং প্রচার প্রচারণাসহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।

যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান গণমাধ্যমকে বলেন, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা প্রশাসন ব্যাপক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। গত এক সপ্তাহ যাবৎ তারা শহরে সচেতনতামূলক মাইকিং চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে তিনি বিভিন্ন উপজেলার ইউএনও, এনজিও কর্মকর্তা ও ইমামসহ সামাজিক, পেশাজীবী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেছেন। করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় জেলা প্রশাসনের সাথে তাদেরও কাজ করার আহবান জানানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, যশোর বিমানবন্দর ও বেনাপোল স্থলবন্দরে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। যাতে স্বাস্থ্যবিধির বাইরে কেউ ভারত-বাংলাদেশে চলাচল করতে না পারে। বিমানবন্দরে মানুষের অহেতুক ঘোরাফেরা ও যাত্রী রিসিভকারীরা যাতে ভিড় না করে সে বিষয়ে বলা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জেলার আটটি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনারদের (ভূমি) নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যাতে হাটে বাজারে ও জনসমাগম স্থলে পদক্ষেপ গ্রহণ বা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

যদিও প্রশাসন যেভাবে কঠোর অবস্থানের কথা বলছে, তেমনিট সর্বত্রে পরিলক্ষিত হচ্ছে না। এরই মধ্যে প্রশ্ন উঠেছে পুলিশ ক্লাব মাঠের মেলা নিয়ে।

গত ১ অক্টোবর মেলা শুরু হয়েছে, যা চলমান রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :