বর্ষবরণে যশোর উদীচীর ব্যাপক প্রস্তুতি

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:28 PM, 08 April 2019

এবিসি নিউজ:পহেলা বৈশাখ বাংলা নববর্ষ। বর্ষবরণের এইদিনটিতে যশোরবাসীকে প্রতিবছরের মতো এবারও মাতিয়ে তুলতে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে শীর্ষ সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী।
এবারও শহরের পৌর উদ্যানের সবুজ চত্বরে পয়লা বৈশাখের অনুষ্ঠান করবে সংগঠনটি। এদিন ভোর ৬টা ৩১ মিনিটে সংগঠনটি বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের সুচনা করবে। কয়েক ঘন্টাব্যাপী ধরে চলবে উদীচীর এই বর্ষবরণ উৎসব। এতে ছড়া, কবিতা, নাচ, গান ও গীতিনৃত্যনাট্য পরিবেশন করবে উদীচীর শিল্পীরা।
এবারের বর্ষবরণ অনুষ্ঠানের গানে পঞ্চ কবির গান অর্থাৎ রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, অতুল প্রসাদ সেন, দ্বিজেন্দ্রলাল রায় ও রজনীকান্ত সেনের বিভিন্ন ধরনের গান প্রাধান্য পাচ্ছে। উৎসব মঞ্চে লোকজ নৃত্যের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের দ্রুপদী ও আধুনিক নাচ পরিবেশিত হবে। এছাড়া বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে মঞ্চায়িত হবে পয়তাল্লিশ মিনিটের গীতিনৃত্য নাট্য ‘বাঙলার কথা বাঙালির কথা’। উদীচী যশোরের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান খান বিপ্লব জানান, বৃটিশ আমল থেকে একাত্তর সাল পর্যন্ত রাজনীতির নানান পটপরিবর্তন উপজীব্য করে সাজানো হয়েছে নৃত্যনাট্যটি।
জানা গেছে, এবার বৈশাখবরণ অনুষ্ঠানে তিন জনকে সন্মাননা জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে উদীচী যশোর। সংগঠনটির যশোর জেলা শাখার উপদেষ্টা এবং স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যকে সন্মাননা জানানো হবে। এছাড়া রবীন্দ্র সংগীত প্রতিযোগিতায় জাতীয় পর্যায়ে প্রথম স্থান অর্জনকারী শিল্পী ওয়াজিয় তাসমিন ও পঞ্চম শ্রেণিতে বৃত্তি পাওয়া যশোর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তারিন তাসমিন সাইমাকে সন্মাননা জানানো হচ্ছে।
বাঙলা নর্ববর্ষ ১৪২৬ বরণ করতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে যশোর উদীচী। নববর্ষবরণ অনুষ্ঠান নাচ, গান, ছড়া ও কবিতা উপস্থাপনের জন্য প্রতিদিন মহড়া করছে উদীচী শিল্পীরা।
এদিকে পয়লা বৈশাখ উপলক্ষে সাজসজ্জার কাজ চলেছে সংগঠনটির কার্যালয়ে। উদীচী আঙিনার প্রাচীরে চুন টানা চলছে। সেখানে বিভিন্ন ধরনের দেয়াল চিত্র আঁকা হবে। এছাড়া শহরের বেশ কয়েকটি পয়েন্টে আলপনা আঁকবে সংগঠনটি। শহরবাসীকে পয়লা বোশেখের আয়োজন সম্পর্কে জানাতে বিভিন্ন মোড়ে প্রচারণা বিল বোর্ড টাঙানো হয়েছে। এসব প্রচার বিলবোর্ডে ‘দূর হোক সকল অকল্যাণ, এসো গাহি মঙ্গলের জয়গান’-এমন আহবান জানানো হচ্ছে।

তবে যশোরের অধিকাংশ সাংস্কৃতিক সংগঠন বর্ষবরণের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে অনেক আগেই। প্রতিদিনই চলছে রিহাসেল।

আপনার মতামত লিখুন :