চৌগাছায় সারের মজুদে প্রশাসনের অভিযান

মাইকিং করে ৭১ বস্তা সার বিক্রি

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  02:31 PM, 25 October 2022
প্রশাসনের অভিযান

যশোরের চৌগাছায় অবৈধ মজুদ গড়ে বেশি দামে সার বিক্রির দায়ে মেসার্স আহাম্মেদ এন্টারপ্রাইজ মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ সময় কিটনাশকের দোকান থেকে ৭১ বস্তা রাসায়নিক সার জব্দ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

 

জব্দকৃত সার

মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার নারায়নপুর ইউনিয়নের চাঁদপাড়া বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এই সার জব্দ এবং দোকানের মালিক পান্নু আহাম্মেদের কাছ থেকে জরিমানা আদায় করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানা।

এসময় তার সাথে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সমরেন বিশ্বাস, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত কৃষি কর্মকর্তা মোশাব্বির হোসাইন, চৌগাছা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়াসহ কৃষি কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহীনির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সমরেন বিশ্বাস জানান, তিনিসহ কৃষি কর্মকর্তারা নিয়মিত পরিদর্শনে গ্রামে বের হয়েছিলেন। তারা চৌগাছা-মহেশপুর সড়কের চাঁদপাড়া বাজার পার হয়ে দেখতে পান একটি আলমসাধুতে (স্থানীয় ইঞ্জিন চালিত যানবাহন) করে বেশ কয়েক বস্তা রাসায়নিক সার ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। গাড়িটি থামিয়ে দেখা যায় সেটিতে করে ইউরিয়া, টিএসপি, ডিএপি ও এমওপি সার নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তাদের কাছ থেকে ক্যাশ মেমো নিয়ে দেখা যায় সারের অতিরিক্ত দাম নেয়া হয়েছে। এতে প্রতিয়মান হয় চৌগাছা উপজেলার বরাদ্দের সার অতিরিক্ত মূল্যে অন্য উপজেলায় পাচার করা হচ্ছে। তৎক্ষণাৎ বিষয়টি উপজেলা সার ও বীজ মনিটরিং কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। আদালত পরিচালনার সময় দেখা যায় ওই কিটনাশক বিক্রেতার সার বিক্রির কোন লাইসেন্সই নেই। অথচ তিনি নিজের দোকানের গুদামে ইউরিয়া, টিএসপি, ডিএপি ও এমওপি সার মজুদ করে রেখেছেন। পরে তার গুদাম থেকে ৫০ কেজি বস্তার ১৪ বস্তা ইউরিয়া, ২৯ বস্তা টিএসপি, ২৪ বস্তা ডিএপি এবং ৪ বস্তা এমওপি সার জব্দ করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইরুফা সুলতানা বলেন, সার ব্যবস্থাপনা আইন-২০০৬ এর ১২(১) ধারার অপরাধ করায় আইনের ১২(৩) ধারায় ওই দোকানির কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। জব্দকৃত ৭১ বস্তা সার মাইকিং করে প্রকৃত কৃষকের মধ্যে ন্যায্যমূল্যে বিক্রি করে বিক্রিলব্ধ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

আপনার মতামত লিখুন :