চৌগাছায় গরীবের টাকা হাতিয়ে রিজডা ফাউন্ডেশন লাপাত্তা

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  08:41 PM, 12 March 2019

*অভিনব কৌশলে প্রায় অর্ধ লাখ টাকা নিয়ে লাপাত্তা প্রতারকচক্র
চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি ॥ যশোরের চৌগাছায় একটি প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে প্রায় অর্ধলাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেছেন এক ভুক্তভোগী। প্রতারিত ব্যক্তি গত এক সপ্তাহ ধরে ওই প্রতারকের সন্ধানে বিভিন্ন জায়গায় ছুটাছুটি করেও তার কোন সন্ধান পাননি। পড়ুন>>>সোনালী ব্যাংকের ৫’শ টাকার বান্ডিলে ১’শ টাকার নোট
জানা গেছে, একটি প্রতারকচক্র সহজ শর্তে ঋণ দেয়ার প্রচার চালিয়ে উপজেলার কিসমতখাঁনপুর, চান্দাআফরা ও চাঁদপাড়া গ্রামের সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে অর্ধলাখ টাকা হাতিয়ে উধাও হয়ে গেছে। তারা বেশকিছু পরিবারকে বুঝিয়ে ছিল ফাউন্ডেশন থেকে হতদরিদ্র মানুষকে মৌসুমী লোন দেয়া হবে। এককালীন ২০ হাজার টাকা নিলে ৬ মাস পর ২২ হাজার ৪৪০ টাকা ফেরত দিতে হবে। তবে লোন নেয়ার আগেই লাভের টাকার অর্ধেক অর্থাৎ ১২২০ টাকা দিতে হবে। বাকি লাভের টাকা মুল টাকার সাথে ফেরত দিলেই চলবে। এই ফাউন্ডেশনের নাম রিজডা ফাউন্ডেশন।
চৌগাছা পৌর সদরের বিশ্বাসপাড়া সড়ক সংলগ্ন এলাকায় ঘাঁটি গেড়ে বসেছিল রিজডা নামের এই প্রতারক চক্র। তাদের খপ্পরে পড়ে শুধু কিসমত খাঁপুর গ্রামের ২৭ জন হতদরিদ্র মানুষ ১২২০ টাকা করে মোট ৩২ হাজার ৯৪০ টাকা তুলে দিয়েছেন তরিকুল ইসলাম নামে এক প্রতারকের হাতে। এই টাকা নিয়ে প্রতারক চক্র লাপাত্তা হয়ে গেছে। গত ৭ মার্চ গ্রাহকদের বাড়ি বাড়ি লোনের টাকা পৌঁছে দিবে বলে টাকা নেয় চক্রটি। কিন্তু নির্ধারিত তারিখে টাকা না পেয়ে গ্রাহকরা তাদের সন্ধানে চৌগাছা পৌর সদরে এসে অফিস খুঁজতে থাকে। কিন্তু কোথাও রিজডা ফাউন্ডেশন নামক কোন প্রতিষ্ঠানের খোজ তারা পাননি। এসময় টাকা গ্রহনকারী অফিসার তরিকুল ইসলামের ০১৬৮৮৭২৯৫০০ ও ০১৮৫৭৭২৯১৭৮ নম্বরে বারবার ফোন দিয়ে বন্ধ পাওয়া যায়। ভুক্তভোগীরা বলেন, তরিকুল ইসলাম ফাউন্ডেশনের বড় অফিসার পরিচয় দিয়ে আমাদের বাড়ি বাড়ি গিয়েছিল। তার কথায় বিশ্বাস করে টাকা জমা দিয়েছিলাম। সে যে প্রতারক তা আমরা বুঝতে পারিনি। তার আসল ঠিকানা কি তাও আমরা জানি না। ভুক্তভোগীরা তাদের টাকা ফেরত পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

খুলনা বিভাগ

আপনার মতামত লিখুন :