খেলাপী ঋণ মওকুফসহ সুদমুক্ত কৃষি ঋণ বিতরণের দাবি এবিসি গ্রুপের

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  02:48 AM, 23 March 2019

এবিসি নিউজ: আজ ২২ মার্চ (শুক্রবার) রাত সাড়ে ১০টায় এবিসি অনলাইন এক্টিভিন্ট ইউনিটের (abc online activist unity) অল মেম্বার মেসেঞ্জারে গ্রুপের সাপ্তাহিত সভায় কৃষি ও ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহিতার ব্যাংক ও এনজিও’র খেলাপী ঋণ মওকুফ, সুদমুক্ত বিতরণ ও কৃষকের বিরুদ্ধে পুলিশবাদি মামলা প্রত্যাহারে সরকারের হস্তক্ষেপ চেয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে।
>>>এবিসি গ্রুপের অন্যতম দাবি সমুহ: কৃষি ও ক্ষুদ্র খামারীর খেলাপী থেকে মুক্তি
>>>কৃষকের বিরুদ্ধে পুলিশবাদি মামলা রাজনৈতিক বিচেনায় প্রত্যাহার
>>>কৃষকদের নিয়মিত কর্মশালার ব্যবস্থা

গ্রুপের কেন্দ্রীয় সভাপতি সুনীল ঘোষের সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ যৌক্তিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

সভায় উল্লেখিত বিষয়ে সহমত পোষণ করে মতামত পেশ করেন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (সারাদেশ) প্রফেসর সামসুল আলম, কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আজম খান, আজহার মাহমুদ, মমতাজ পারভীন লিপি, সাধারণ সম্পাদক সমর ভৌমিক, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ভাস্কর মনি সরকার, সহ-সাধারণ সম্পাদক আপেল মাহমুদ, রানা শিকদার, সুলতানা খান দিনা, আন্তর্জাতিক সম্পাদক কণিকা বড়ুয়া,  ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাজূ আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক (সিলেট বিভাগ)এম.জেড.এ জাহাঙ্গীর, দপ্তর সম্পাদক এমডি আখতার, প্রচার সম্পাদক চন্দন দেবনাথ, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ছবি সিনহা, আইন বিষয়ক সম্পাদক প্রতিভাময়ী মন্ডল, সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক বাসব রায়, খুলনা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহিম রানা, বরিশাল বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক উত্তম হাজরাসহ গ্রুপের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, কৃষি ও ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহিতারা সামান্য টাকা গ্রহণ করে এখন ঋণের জালে আটকে গেছেন। ব্যাংক ও এনজিও’র চাপে দিশেহারা হয়ে অনেকে আত্মহত্যা পর্যন্ত করছেন। অথচ স্বল্প ও অনেক ক্ষেত্রে সুদমুক্ত কোটি কোটি টাকার ঋণ নিয়ে এক শ্রেণীর কৃষকের উপর ছড়ি ঘুরাচ্ছেন। এ অবস্থা চলতে থাকলে কৃষি ও কৃষক যেমন দেউলিয়া হয়ে যাবে তেমনি ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহিতারা পথে বসবেন। এসব বিবেচনায় নিয়ে খুব দ্রুত কৃষি ও ক্ষুদ্র খামারীদের ঋণ মওকুফ ও সুদমুক্ত ঋণ বিতরণ করতে হবে।

একই সাথে পুলিশবাদি মামলার বোঝা নিয়ে অনেক কৃষক ফেরারি জীবন যাপন করছেন। এসব মামলা প্রত্যাহার ও তাদের মুলস্রোতে ফেরাতে কৃষকদের নিয়ে কর্মশালা করার দাবি করেন নেতৃবৃন্দ।

সভার দ্বিতীয় পর্যায়ে সাধারণ সম্পাদক সমর ভৌমিক কেন্দ্রীয় কমিটি পুর্ণাঙ্গ করার বিষয়টি উপস্থাপন করেন এবং কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক প্রফেসর সামসুল আলম ক্রমানুসারে নেতা নির্বাচনে নাম প্রস্তাব উত্থাপন করেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ কমিটির শূণ্য পদে নির্বাচনের জন্য আগামী ৩০ মার্চ রাত সাড়ে ১০টায় অল মেম্বার মেসেঞ্জারে সভার দিনক্ষণ ধার্য্য করা হয়।

দ্বিতীয় ধাপে জন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় “গ্রামের শান্তি ফিরিয়ে দেওয়া” বিষয়ের উপর আলোচনা করা হয়। মুক্ত আলোচনায় কৃষকের পক্ষে-

সভায় উত্থাপিত দাবিসমুহ গ্রুপ পোস্ট করার সিদ্ধান্ত কন্ঠ ভোটে জয়যুক্ত হয়।

উল্লেখিত পদসমূহ নির্বাচনের পর সময় সল্পতার জন্য সভার সভাপতি কাছাকাছি সময়ের মধ্যে পর্যায়ক্রমে প্রায় প্রতিদিন ক্ষুদ্র সভা আহ্বানের মাধ্যমে কমিটি পূর্ণাঙ্গ রূপ দেওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন এবং নব নির্বাচিত সকল সদস্যকে ধন্যবাদ ও উপস্থিত সকল সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে সভা সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

আপনার মতামত লিখুন :