ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে ছুটে আসেন দেবী প্রসাদ শেঠী

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  06:36 PM, 04 March 2019

ঢাকা অফিস: হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের অবস্থা দেখতে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ছুটে আসেন ভারতের বিখ্যাত কার্ডিয়াক সার্জন দেবী প্রসাদ শেঠী ।

আরও পড়ুন>>>সিঙ্গাপুরের পথে ওবায়দুল কাদের

বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের প্রিভেনটিভ অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. হারিসুল হক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ সোমবার দুপুরে শাহজালাল বিমানবন্দরে ডা. শেঠীকে স্বাগত জানান। তারপর তারা সরাসরি বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে যান।

অধ্যাপক ডা. হারিসুল হক বলেন, “সব দেখে কার্ডিয়াক সার্জন হিসেবে তিনি তার মতামত জানিয়েছেন।”

ভারতের নারায়ণ ইন্সটিটিউট অব কার্ডিয়াক সায়েন্সেসের প্রতিষ্ঠাতা ডা. দেবী শেঠীর ১৫ হাজারের বেশি অস্ত্রোপচার করার অভিজ্ঞতা রয়েছে। স্বল্প খরচে হৃদরোগের চিকিৎসা দেয়ার উদ্যোগ নিয়ে আলোচিত এই চিকিৎসককে ২০১২ সালে পদ্মভূষণ খেতাবে ভূষিত করে ভারত সরকার।

এদিকে সিঙ্গাপুর থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে যে চিকিৎসক দলটি ঢাকায় এসেছিল, তারাও ওবায়দুল কাদেরের সাথে সিঙ্গাপুরে রওনা হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, একজন পুষ্টিবিদ একজন নার্স ও একজন টেকনিশিয়ান রয়েছেন।

রোববার সকাল থেকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের করোনারি কেয়ার ইউনিটে ভর্তি আছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের। তাকে কৃত্রিমভাবে শ্বাসপ্রশ্বাস দেওয়া হচ্ছে।

এনজিওগ্রামে তার হৃদপিণ্ডের রক্তনালীতে তিনটি ব্লক ধরা পড়লে স্টেন্টিংয়ের মাধ্যমে একটি অপসারণ করেন চিকিৎসকরা। তার অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেও এখনও সঙ্কট কাটেনি বলে চিকিৎসকরা জানান।

কাদেরকে দেখতে সোমবার সকালে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে এসে চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।

আওয়ামী লীগের উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া সকালে বলেন, সেতু মন্ত্রীর চেতনা ‘পুরোপুরি ফিরেছে’।

ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কর্তৃপক্ষ রোববারই একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছিল।

তারা হলেন কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সৈয়দ আলী আহসানের নেতৃত্বে এই বোর্ডে রয়েছেন প্রিভেনটিভ অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক হারিসুল হক, অধ্যাপক চৌধুরী মেশকাত আহমেদ চৌধুরী, অ্যানেস্থেশিয়া বিভাগের অধ্যাপক দেবব্রত ভৌমিক, অধ্যাপক একেএম আক্তারুজ্জামান, কার্ডিও সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক মো. রেজওয়ানুল হক, অধ্যাপক অসিত বরণ অধিকারী, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক কামরুল হাসান ও তানিয়া সাজ্জাদ।

বাংলাদেশ

আপনার মতামত লিখুন :