হেফাজত নেতা মামুনুল হক সম্বন্ধে সংসদে যা বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

32

বাংলাদেশে কওমী মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হককে নিয়ে শনিবার নারায়ণগঞ্জের এক রিসোর্টে যে নাটকীয় পরিস্থিতি তৈরি হয়, তা নিয়ে রোববার জাতীয় সংসদে বক্তব্য দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বক্তব্যে তিনি মি. হক, তার কর্মকাণ্ড ও হেফাজতে ইসলামের তীব্র সমালোচনা করেন।

প্রায় ৪০ মিনিটের বক্তব্যের একটি বড় অংশ জুড়ে শেখ হাসিনা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে যে ধরণের বিক্ষোভ দেখিয়েছে তারা সমালোচনা করে বক্তব্য দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, শনিবার মামুনুল হক ‘অপবিত্র কাজ করে সোনারগাঁও এর রিসোর্টে’ ধরা পড়েছেন।

“এরা ধর্মের নামে এত কথা বলে, পবিত্রতার নামে এত কথা বলে, এখন অপবিত্র কাজ করে সোনারগাঁও এর রিসোর্টে ধরা পড়েছে দলটির যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক। এখন সেটা ঢাকার জন্য নানা রকম চেষ্টা করছে তারা।”

প্রধানমন্ত্রী সংসদে তার ভাষণে বলেন, “এত আগুন জ্বালাও-পোড়াও করে তিনি (মামুনুল হক) বিনোদন করতে গেলেন রিসোর্টে, একজন সুন্দরী মহিলা নিয়ে। এরা ইসলাম ধর্মের নামে কলঙ্ক। এরা ইসলাম ধর্মকে ছোট করে দিচ্ছে।”

“এরা ধর্মকে কলুষিত করে দিচ্ছে, ধর্মের নামে ব্যবসা শুরু করেছে। বিনোদনের এত অর্থ কোথা থেকে আসে?” এমন প্রশ্নও তোলেন প্রধানমন্ত্রী।

রবিবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে জাতীয় সংসদে অধিবেশনকালে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে, সকালে করো’না মহামা’রি থেকে বাঁচতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা বলেন, ‘মানুষের জীবন আগে বাঁ’চাতে হবে। স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করা, স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং নিয়ম-নীতি মেনে নিজেকে ও অন্যকে সুরক্ষা করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশের মানুষের অর্থনৈতিক কর্মকা’ণ্ড যেন সচল থাকে এ বিষয়ে আম’রা যথেষ্ট সচেতন। তবে মানুষের জীবনটা আগে। কারণ, জীবন যদি না বাঁচে তাহলে আমাদের অর্থনীতিই বা কী’ আর রাজনীতিই বা কী’।’

সরকার প্রধান বলেন, ‘স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করা, স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও নিয়ম-নীতিগুলো মেনে চলা এবং সেভাবে নিজেকে সুরক্ষিত করা এবং অন্যকে সুরক্ষিত রাখা। এটা অবশ্যই সকলকে করতে হবে। আম’রা ইতিমধ্যে করো’না নিয়ন্ত্রণের জন্য অনেকগুলো নির্দেশনা দিয়ে দিয়েছি। এই নির্দেশনা যাতে যথাযথভাবে মানুষ পালন করে সেটিকে সবাইকে দৃষ্টি দিতে হবে।’ এ সময় করো’না নিয়ন্ত্রণে এনএসআই সদস্যদের দায়িত্বশীল ভুমিকা পালনের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের রয়্যাল রিসোর্টে নারীসহ বেড়াতে গিয়ে স্থানীয় জনগণের হা’মলার মুখে পড়েছেন হেফাজতে ইস’লামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মা’ওলানা মামুনুল হক।

শনিবার বিকাল ৩টায় রয়াল রিসোর্টের ৫ম তালার ৫০১ নম্বর কক্ষে তাকে অব’রুদ্ধ করা হয়। পরে পু’লিশ গিয়ে তাকে উ’দ্ধার করে। মামুনুল হকের দাবি, সঙ্গে থাকা নারী নাম আমিনা তৈয়ব। তিনি মামুনুল হকের দ্বিতীয় স্ত্রী’। আমিনাকে সঙ্গে নিয়ে রিসোর্টে ঘুরতে গিয়েছিলেন তিনি।