১১ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থী ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবে-হাইকোর্ট

37

এবিসি ডেস্ক:ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে কমপক্ষে ১১ বছর বয়স নির্ধারণ করে দেয়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশ এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে ভর্তির আবেদনের সময়সীমা সাতদিন বৃদ্ধি এবং শিক্ষার্থী ভর্তির আবেদনের জন্য ব্যবহৃত সার্ভার মোডিফাই (সফটওয়্যার) করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এ বিষয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। এরফলে ১১ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তিতে আর কোনো বাধা রইল না।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) এক অভিভাবকের করা রিটের শুনানি নিয়ে বিচারপতি জে বিএম হাসান ও মো. খায়েরুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী অনিক আর হক। তার সঙ্গে ছিলেন রিট আবেদনকারীর আইনজীবী মনজুর এলাহী পরাগ ও আইনুন নাহার। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।

আদেশের বিষয়টি সারাবাংলাকে নিশ্চিত করে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায় বলেন, ‘স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে কমপক্ষে বয়স ১১ বছরের বাধ্যবাধকতা রেখে আদেশ জারি করেছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ঘটনায় মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের নামের এক অভিভাবকের রিটের পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয়ের ওই আদেশ এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। এবং ভর্তি আবেদনের সময়সীমা সাতদিন বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এর ফলে আগের নিয়মে ষষ্ঠ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি হতে পারবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আদালত একইসঙ্গে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে ১১ বছর বয়সের শর্ত সম্বলিত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ওই আদেশকে কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালকসহ (ডিজি) সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে হবে।’

রিটের পক্ষের আইনজীবী অনিক আর হক বলেন, ‘এতদিন অনলাইনে আবেদন গ্রহণ করা হলেও মাউশি কর্তৃপক্ষ এবারই প্রথমবারের মতো যান্ত্রিক পদ্ধতিতে টেলিটক লিমিটেডের বিশেষ সফটওয়্যার ব্যবহার করে আবেদন গ্রহণ ও ভর্তিতে লটারির আয়োজন করেছে। লটারি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল আগামীকাল। অথচ লাখ লাখ ভর্তিচ্ছু শিশু বয়সের ফাঁদে পড়ে এখনও আবেদনই করতে পারেনি। আজকের আদেশের ফলে আগের নিয়মে ষষ্ঠ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে আর কোনো বাধা থাকল না।’

মুন্সীগঞ্জ সদরের মাঠ পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ২০২০ সালে পঞ্চম শ্রেণি থেকে ষষ্ঠ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয় এক শিক্ষার্থী। এরপর কাছাকাছি এভিজেএম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তির জন্যে অনলাইনে আবেদন করতে গেলে যাদের বয়স ১১ বছরের কম, তাদের আবেদন সফটওয়্যার গ্রহণ করছিল না। স্কুল থেকে জানানো হয়, গত ১৩ ডিসেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জারি করা সার্কুলার অনুযায়ী ভর্তির ক্ষেত্রে ২০১০ সালের ১ জানুয়ারির পরে জন্ম নেওয়া কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি নিতে পারবে না।

এরপর রিটকারী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান শিক্ষা মন্ত্রণালয়, শিক্ষা অধিদফতরসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে ভর্তির বিষয়ে সমাধান করার জন্য ২৩ ডিসেম্বর একটি আবেদন করেন। ওই আবেদনের সাড়া না পেয়ে তিনি পরবর্তী সময়ে সার্কুলার চ্যালেঞ্জ করে এ বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে গত ২৭ ডিসেম্বর হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন। রিটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি), মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক, জেলা প্রশাসক (ডিসি), জেলা শিক্ষা অফিসার, প্রধান শিক্ষক মাঠ পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও প্রধান শিক্ষক এ.ভি.জে.এম সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে বিবাদী করা হয়। ওই রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট আজ এই আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, সারাদেশে মোট ৩৮৬টি সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনলাইনে ভর্তির আবেদন নেওয়া হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে মোট ৪ লাখ ৬৭ হাজার ৩২৪টি আবেদন জমা পড়েছে।ঢাকা: ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তির ক্ষেত্রে কমপক্ষে ১১ বছর বয়স নির্ধারণ করে দেওয়া শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আদেশ এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে ভর্তির আবেদনের সময়সীমা সাতদিন বৃদ্ধি এবং শিক্ষার্থী ভর্তির আবেদনের জন্য ব্যবহৃত সার্ভার মোডিফাই (সফটওয়্যার) করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে এ বিষয়ে রুল জারি করেছেন আদালত। এর ফলে ১১ বছরের কম বয়সী শিক্ষার্থীদের ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তিতে আর কোনো বাধা রইল না।