সুবর্ণ জয়ন্তীতে ভারতের উপহার ১২ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন এসে পৌঁছেছে

17

ভারত সরকারের উপহার দেওয়া আরও ১২ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেশে এসেছে বলে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শাহরিয়ার সাজ্জাদ।

তিনি বলেন, দুপুর পৌনে দুইটার দিকে টিকা বহনকারী ফ্লাইট বিমানবন্দরে এসে পৌঁছায়।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির লাইন ডিরেক্টর ডা. শামসুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এই ১২ লাখ টিকা তেজগাঁয়ের ইপিআই ক্লোল্ড স্টোরেজে রাখা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড টিকার উৎপাদন করছে ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউট।

গত ৫ নভেম্বর বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট ত্রিপক্ষীয় চুক্তি সই করে। চুক্তির আওতায় সেরাম ইনস্টিটিউট তিন কোটি টিকা বাংলাদেশকে রফতানি করবে বলে কথা রয়েছে। এগুলো ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা।

এখন পর্যন্ত ভারত থেকে টিকা এসেছে মোট ৯০ লাখ ডোজ।

এর মধ্যে উপহার হিসেবে গত ২১ জানুয়ারি প্রথমে আসে ২০ লাখ ডোজ। সরকারের অর্থে কেনা টিকার প্রথম চালানে ২৫ জানুয়ারি আসে ৫০ লাখ ডোজ, সর্বশেষ ফেব্রুয়ারি মাসের ২৩ তারিখ আসে ২০ লাখ ডোজ। এবার এসেছে ১২ লাখ ডোজ। অর্থাৎ, ভারত থেকে কেনা ও উপহার মিলিয়ে এ পর্যন্ত মোট টিকা এসেছে এক কোটি দুই লাখ।

গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী এই গণ টিকাদান কর্মসূচি চলছে।