সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের শুভেচ্ছা বার্তা

12

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশের ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠান শেষ হয়েছে শুক্রবার (২৬ মার্চ)। স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তীর দিনে এই অনুষ্ঠান শেষ হয়।

শেষ দিনের অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। অনুষ্ঠান শুরুর দিন গত ১৭ মার্চ জাতির পিতার জন্মদিনে উপস্থিত ছিলেন মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহামেদ সলিহ্। এছাড়া ১৯ মার্চ অনুষ্ঠানে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে, ২২ মার্চের অনুষ্ঠানে নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারী, ২৪ মার্চ অনুষ্ঠানে ভুটানের প্রধানমন্ত্রী লোটে শেরিং উপস্থিত ছিলেন।

সশরীরে প্রতিবেশী ৫টি দেশের রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানের অংশগ্রহণ ছাড়াও ১০ দিনের এই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র ও সরকার প্রধান, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য ও আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রধান ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন। অনেকে পাঠিয়েছেন লিখিত বক্তব্যও। অভিনন্দন বার্তাও পাঠিয়েছেন কেউ কেউ।

শুক্রবার অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ায় এবং বার্তা পাঠানোর জন্য সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশের জনগণ এবং সরকারকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন— চীনের রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, জাপানের প্রধানমন্ত্রী ইয়োশিহিদে স্যুগা, কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হু সেন, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী চুং সেয় কিউন, ভ্যাটিকানের পোপ দ্বিতীয় ফ্রান্সিস, রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সেরগেই ভি লাভরভ, ফ্রান্সের সিনেটর ম্যাডাম জাকুলিন ডেরোমেডি, ওআইসির মহাসচিব ড. ইউসেফ আল ওথাইমীন, ইউনেস্কোর মহাপরিচালক অড্রে আজুলে, ভারতীয় কংগ্রেসের সভাপতি সোনিয়া গান্ধিসহ আরও অনেকেই।

লিখিত অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন— যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, ফ্রান্স, জার্মানি, ইটালি, অষ্ট্রিয়া, কিউবা, চেক রিপাবলিক, এস্তোনিয়া, ইথিওপিয়া, মিশর, ইউরোপিয়ান কাউন্সিল, জর্জিয়া, উত্তর কোরিয়া, পোল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, সুইস ফেডারেশন, ফিলিপাইন, ফিলিস্তিন, তুরস্ক, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইউক্রেন, ভিয়েতনাম, লাও পিডিআর, মঙ্গোলিয়া এবং জাম্বিয়ার মহামান্য রাষ্ট্রপতিরা।

এছাড়া আলজেরিয়া, বুলগেরিয়া, বসনিয়া-হার্জিগোভিনা, কিউবা, চীন, চেক রিপাবলিক, গ্রিস, ইরাক, কসোভো, মন্টিনিগ্রো, মোনাকো, মালয়েশিয়া, কাতার, সার্বিয়া, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাতের ভাইস-প্রেসিডেন্ট, এবং ভিয়েতনামের প্রধানমন্ত্রী এবং মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় প্রশাসনিক কাউন্সিলের সভাপতি অভিন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন।

ব্রিটেনের রাণী, জাপানের সম্রাট, বেলজিয়াম, মালয়েশিয়া, স্পেন, সুইডেন ও মরোক্কোর মহামহিম রাজা, ব্রুনাইয়ের মহামহিম সুলতান, কাতারের আমিরসহ অনেকেই লিখিত অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন।