সাতক্ষীরায় ট্রাকের ধাক্কায় ইঞ্জিনভ্যান উল্টে প্রাণ গেল একজনের

18

>>জামাই’র মৃত্যুর খবর শুনে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শ্বশুরের ইন্তেকাল
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:
সাতক্ষীরায় ট্রাকের ধাক্কায় ইঞ্জিনভ্যান উল্টে রাস্তার পাশে পানিতে পড়ে একজন নিহত ও দুই নারী আহত হয়েছেন। বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদর উপজেলাধীন সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের বিনেরপোতা এলাকায় বিসিক এর পাশে পেট্রোল পাম্পের কাছে এই ঘটনা ঘটে।
নিহতের নাম শেখ হাফিজুল ইসলাম (৫৫)। তিনি সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার বড়বিলা গ্রামের শেখ আব্দুল লতিফের ছেলে। এঘটনায় একই গ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী তাপিলা খাতুন (৫৫) ও তাদের প্রতিবেশী ছায়রা খাতুন (৪৮) আহত হয়েছেন। এরমধ্যে তাপিলা খাতুন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ছায়রা খাতুনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

নিহতের ছোট ভাই শেখ আজহারুল ইসলাম জানান, তার ভাই শেখ হাফিজুল ইসলামসহ তাদের প্রতিবেশী দুই মহিলাকে সাথে নিয়ে রাতে বাড়ি থেকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছিলাম অসুস্থ শ্বশুর আব্দুর রহমানকে দেখতে। রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদর উপজেলাধীন সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের বিনেরপোতা এলাকায় বিসিক এর পাশে পেট্রোল পাম্পের কাছে পৌঁছালে একটি দ্রুত গতির ট্রাক তাদের ইঞ্জিনভ্যানটিকে পিছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ইঞ্জিন উল্টে রাস্তার পাশে খাদের পানিতে পড়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের তিনজনকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তৃব্যরত চিকিৎস্যক আমার ভাই শেখ হাফিজুল ইসলামকে মৃত ঘোষণা করেন।
এদিকে সড়ক দুর্ঘটনায় জামাই’র মৃত্যুর খবর শুনে সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শ্বশুর আব্দুর রহমান (৬৫) হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে বৃহস্পতিবার ভোর রাত ২টার দিকে মারা যান। আব্দুর রহমান সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার বড়বিলা গ্রামের মৃত মোবারক হোসেনের ছেলে। নিহতের ছোট ভাই শেখ আজহারুল ইসলাম এঘটনা নিশ্চিত করেন।
সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসাদুজ্জামানা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।