শ্যামনগরে র‌্যাবের ওপর হামলা:ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

13

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:মাদক উদ্ধার অভিযানে যাওয়া র‌্যাব সদস্যদের ওপর দু’দফায় চোরাচালানীদের হামলা এবং তাদের মারপিট করে ঘরে আটকে রাখার ঘটনায় সাতক্ষীরা শ্যামনগর থানায় একটি মামলা হয়েছে। রোববার রাতে সাতক্ষীরার শ্যামনগর থানায় মামলাটি করেন র‌্যাবের সাব ইন্সপেক্টর এলাহী মিয়া। একই ঘটনায় তিনি আরও একটি মামলা করেছেন দেবহাটা থানায়। প্রথম মামলায় আসামি করা হয়েছে শ্যামনগর উপজেলার রমজাননগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আল মামুনকে। এছাড়াও আলমগীর, হযরত, প্রদীপ বর্মন, মুজিবুরসহ আরও ৭ জনকে মামলায় আসামি করা হয়েছে। এরবাইরেও অজ্ঞাতনামা আরও ৪০-৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। আরও খবর>>শ্যামনগরে দু’দফার হামলায় র‌্যাব সদস্যসহ আহত ৮:চেয়ারম্যান-মেম্বর আটক


শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নাজমুল হুদা জানান, শনিবার রাতে শ্যামনগর উপজেলার কৈখালিতে র‌্যাব সদস্যরা মাদক জব্দ করতে গেলে চোরাচালানীরা তাদের ওপর হামলা করে। এ সময় মারপিট করে ও একটি ঘরে র‌্যাব সদস্য বিশ^জিত ও আসলানকে আটকে রাখে। একই সময় তারা র‌্যাবের ৫-৬ জন সোর্সকেও বেধড়ক মারপিট করে আহত করে। তাদের সাথে থাকা প্রাইভেটকার ও কয়েকটি মোটরসাইকেলও ভাংচুর করে। খবর পেয়ে র‌্যাবের কয়েকজন সদস্য কৈখালিতে গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। রাত ১০টার দিকে এঘটনার পর রমজাননগর ইউনিয়নের ব্রিজের ধারে উদ্ধার হওয়া র‌্যাব সদস্যরা পৌঁছালে তাদের ওপর আবারও হামলা করে চোরাকারবারীরা। পরে অতিরিক্ত র‌্যাব সদস্য যেয়ে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসে। ওসি জানান, এ ঘটনায় রমজাননগর ইউপি চেয়ারম্যান আল মামুন নেতৃত্ব দিয়েছেন বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়। আল মামুনকে আটক করে শ্যামনগর থানায় সোপর্দ করেছে র‌্যাব। অপরদিকে দেবহাটা থানার ওসি বিপ্লব কুমার সাহা জানান, দেবহাটা থানায় আরও একটি মামলা হয়েছে।