শৈলকুপায় শ্বশুরবাড়িতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা:স্বামী পালিয়েছে

25

ঝিনাইদহের শৈলকুপার দলিলপুর গ্রামে বাবার বাড়ি থেকে সাথী খাতুন (১৮) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। আজ শনিবার(২৯ মে) সকাল ১০ টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। স্বজনদের দাবি, স্বামীর হাতে হত্যার শিকার হয়েছেন সাথী। তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।
মৃত সাথী ওই গ্রামের গোলাম মোস্তফার মেয়ে। এদিকে এ ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে গৃহবধূর স্বামী সুজন বিশ্বাস। এদিকে মেয়েকে হারিয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েছেন সাথীর মা। স্বজনদের আহাজারীতে আশপাশের পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে।

সাথীর মা অমেলা বেগম জানান, ৬ মাস আগে পার্শ্ববর্তী জেলার মাগুরা শহরের ঢালপাড়া গ্রামের বরকত বিশ্বাসের ছেলে সুজন বিশ্বাসের (২০) সাথে সাথীর বিয়ে হয়। গত বুধবার সুজন দলিলপুরে আসে। শুক্রবার মেয়ে ও জামাইকে রেখে কুষ্টিয়ার আমলায় স্বামীর কাছে ধান আনতে যান তিনি। সকালে প্রতিবেশীরা খবর দেয় তার মেয়ে মারা গেছে।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, সাথীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে জামাই পালিয়েছে। যাওয়ার সময় মেয়ে জামাই এর কাছে ৯০ হাজার টাকা দিয়ে সাবধানে রাখতে বলেন। ফিরে এসে ঘরে সে টাকা পান না। মেয়ের কানে রিং ছিল তাও নেই।

শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম গণমাধ্যমকে জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে সে হত্যা নাকি আত্মহত্যা করেছে সেটি ময়নাতদন্ত ছাড়া বলা যাচ্ছে না। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।