শিক্ষানবীশ আইনজীবীর গলায় ‘আমি টাউট’ লিখে ফেসবুকে পোস্ট

35

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সাতক্ষীরা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি গ্রেফতার
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার হয়েছেন সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাড. শাহ আলম। রোববার সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাড. শাহ আলমনহ পাঁচ আইনজীবীর বিরুদ্ধে এই মামলাটি দায়ের করেন লিয়াকত হোসেন নামের একজন শিক্ষানবীশ আইনজীবী। এরআগে তার বিরুদ্ধে একটি মামলার শুনানি চলাকালে পিপি সম্পর্কে কটূক্তি করায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরও একটি মামলা হয়।

রোববার সদর থানায় একজন শিক্ষানবীশ আইনজীবীর গলায় ‘আমি আইনজীবী নই, আমি টাউট’ এমন একটি লেখা ঝুলিয়ে তা ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন শিক্ষানবীশ আইনজীবী অ্যাড. লিয়াকত হোসেন।
মামলার আরজিতে বলা হয় অ্যাড. শাহ আলম ও তার চার সহযোগী আইনজীবী তার গলায় কুরুচিপূর্ণ লেখাটি জোর করে ঝুলিয়ে দেন এবং তার ছবি ধারণ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেন। মামলার অন্য আসামিরা হলেন অ্যাড. সিরাজুল ইসলাম (৫),অ্যাড, তারিক ইকবাল তপু, অ্যাড. শাহেদুজ্জামান শাহেদ, অ্যাড. ফুয়াদ হাবিব টিটো। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন যে, তিনি ল’ পাস করার পর বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সার্টিফিকেট পেয়েছেন। সাবেক সভাপতি অ্যাড. আব্দুল মজিদ তাকে শিক্ষানবীশ আইনজীবী হিসাবে একটি কার্ড দিয়ে স্বীকৃতি দিয়েছেন। অথচ ২০২০ সালের ৬ অক্টোবর সে সময়কার আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. শাহ আলম তাকে তার চেম্বারে ডেকে নিয়ে দরজা বন্ধ করে মারপিট করে গলায় ‘আমি আইনজীবী নই, আমি টাউট’ প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে ছবি তুলে তার নিজের ফেসবুক আইডিতে ছেড়ে দেন। এতে তার সম্মানহানি এবং মর্যাদাহানি হয়েছে। তিনি এর বিচার দাবি করেন।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অ্যাড. শাহ আলমকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।