শাপলা বিক্রি করে ছেলের চিকিৎসা করাতে চান ছবুরোন বেগম


  প্রকাশিত হয়েছেঃ  08:56 PM, 20 August 2021

 

মিথিলা ইসলাম ইভা:  অভাবের তাড়নায় জীবিকা নির্বাহ করতে শাপলা নিয়ে প্রতিদিন ছুটে চলেন এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে।প্রতিদিনের ইনকামে চলে মা-ছেলের ছোট্ট সংসার।

খোজ নিয়ে জানা যায়, ১৬ নং নেহালপুর ইউনিয়নের ঝাউতলার মৃত্যু ম্যাজান মোল্যার ছেলে জালাল মোল্লার ৪ নং স্ত্রী ছবুরোন বেগম।পারিবারিক কোলাহলে বিচ্ছিন্ন স্বামীর সংসার থেকে প্রায় ১৮ বছর, বর্তমান ভরতপুর দক্ষিন পাড়াই বাপের বাড়ি থাকেন,ছবুরোন বেগম ১৩ নং খানপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের দক্ষিন ভরতপুর মতলেব মোল্যার এক মাত্র মেয়ে। একটা ছেলেকে নিয়ে তার পারিবারিক বসবাস কিন্তু ছেলে আলিম মোল্যা দীর্ঘদিন কিডনি রোগে ভুগছেন,সংসারের খরচ আর ছেলের চিকিৎসার খরচ চালাতে এভাবে প্রতিদিন শাপলা বিক্রি করেন কিন্তু তাতে তেমন কোন ফল পান না।

১৩ নং খানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী বলেন ,ছবুরোন বেগমের নামে বয়স্ক ভাতা ও ছেলে আলিম মোল্যার নামে ভিজিডি-র কার্ড করে দিয়েছি।
এ বিষয়ে ছবুরোন বেগমের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,আমার বয়স্ক ভাতা আর ছেলের ১০ টাকা চাউলের কার্ড আছে কিন্তু এতে তো আর ছেলের চিকিৎসা করাতে পারি না, সরকার থেকে যেটা পাই সেটা সংসারের খরচে চলে যাই তাই আমি গ্রামে গ্রামে শাপলা বিক্রি করি, আপনারা যদি আমার ছেলের চিকিৎসা করানোর জন্য সাহায্য করেন তাহলে মা হয়ে আমাকে আর গ্রামে গ্রামে ঘুরতে হবে না।

আপনার মতামত লিখুন :