শর্ত সাপেক্ষে জামিন পেলেন সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম

22

শর্ত সাপেক্ষে জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পেয়েছেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা পাসপোর্ট জমা দিলে জামিন দিলে আপত্তি নেই জানালে রোজিনা ইসলামের আইনজীবীরা তা মেনে নেন। আজ রোববার(২৩ মে) সকালে ঢাকা মহানগর হাকিম মোহাম্মদ বাকি বিল্লাহ ভার্চুয়াল শুনানি শেষে সাংবাদিক রোজিনার জামিন মঞ্জুর করে আদেশ দেন।

আদালত রোজিনাকে তার পাসপোর্ট জমা দিতে বলেছেন। এরবাইরে ৫ হাজার টাকা ও পক্ষীয় একজন আইনজীবীর জিম্বায় এই জামিন মঞ্জুর করা হয়েছে। আরও খবর>>বিশ্বের অনন্ত দেড়শ’ মিডিয়ায় সাংবাদিক রোজিনাকে হেনস্তার খবর

এ সময় মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ইনস্পেকটর মোর্শেদ হোসেন খান রোজিনা ইসলামের কাছ থেকে জব্দকৃত দুটি মোবাইল ফোন ফরেনসিক পরীক্ষার অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন করেন।

কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান মামুন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম জামিন পেয়েছেন সেটা আমরা মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পেরেছি। আদালতের আদেশ হাতে এলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।’

গত বৃহস্পতিবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ভার্চুয়াল শুনানির পর আজ জামিনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন বলে জানিয়েছিলেন আদালত। মঙ্গলবার সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জসিম তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

সংবাদ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য গত ১৭ মে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে গেলে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলামকে সেখানে পাঁচ ঘণ্টার বেশি সময় আটকে রেখে হেনস্তা করা হয়। এক পর্যায়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

সেদিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশ তাকে শাহবাগ থানায় নিয়ে যায়। রাত পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ জানায়, রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে পেনাল কোড ও অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে মামলা হয়েছে। তাকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।