শরণখোলায় প্রার্থীতা বাতিলের যড়যন্ত্র হচ্ছে-মেম্বার প্রার্থীর অভিযোগ

17

শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি:বাগেরহাটের শরণখোলায় এক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতা ও সাবেক ইউপি সদস্যের প্রার্থীতা বানচাল করতে গভীর চক্রান্ত শুরু করেছে একটি কুচক্রি মহল। ২১ মার্চ (রোববার) দুপুরে শরণখোলা উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ও ধানসাগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং ইউপি সদস্য মো. জামাল আহম্মেদ।
লিখিত বক্তব্যে তিনি দাবি করেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে ধানসাগর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের কালীবাড়ী গ্রামে বসবাস করে আসছি। এছাড়া বিগত দিনের অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ সকল নির্বাচনে ওই ওয়ার্ড থেকে সংশ্লিষ্ট প্রার্থীদের ভোট প্রয়োগ করেছি। আমার ভোটার তালিকা-নং ৯নং-ওয়ার্ড-পুুরুষ-২৪৬, এবং ভোটার নং-০১১২৯৮০০০১৫৪। কিন্তু আমি ওই ওয়ার্ড হতে আসন্ন ইউপি নির্বাচন করার জন্য এলাকাবাসীর মাঝে ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়ে গত ১৮ মার্চ শরণখোলা উপজেলা নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছি। এরপর থেকে একটি কুচক্রি মহল জাল জালিয়াতীর মাধ্যমে আমার ভোটারটি পরিবর্তন করে ধানসাগর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে কে বা কারা স্থানান্তর করেছে। যা আমি আদৌও অবগত ছিলাম না। যার ফলে ৯নং- ওয়ার্ড থেকে তার দাখিল করা মনোনয়ন পত্রটি যাছাই বাচাই কালে বাতিল করেন উপজেলা নির্বাচন কমিশন। তিনি আরো বলেন, আমি ওই ওয়ার্ডের এক সময় মেম্বার ছিলাম। ভোটার পরিবর্তনের জন্য তিনি কোথাও কোন আবেদন করেননি। কিন্তু তা পরিবর্তন হলো কিভাবে ? বিষয়টি নিয়ে তিনি রীতিমতো হতবাক হয়েছেন। ইতিমধ্যে তার প্রার্থীতার বৈধতা চেয়ে জেলা রির্টানিং কর্মকর্তার কাছে একটি আবেদন করেছেন। এছাড়া প্রার্থীতা ফিরে পেতে সংশ্লিষ্টদের কাছে জোর অনুরোধ জানান সংবাদ সম্মেলনে।
ধানসাগর ইউনিয়নের রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ওয়াসীম উদ্দিন জানান, এ বিষয়ে জামাল আহম্মেদ জেলা রিটানিং কর্মকর্তার কাছে আপিল করেছেন। আগামী ২৪ মার্চ তার শুনানীর দিন ধার্য করা হয়েছে। ওইদিন বিষয়টির ফয়সালা হবে।