যুক্তরাষ্ট্রে ১৯ শিশুকে খুন:বিশ্বজুড়ে সমালোচনার ঝড়

চলতি বছরে ২১২ হামলা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুলোধুনা জো বাইডেনকে

আন্তর্জাতিক ডেস্কআন্তর্জাতিক ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  09:19 PM, 26 May 2022
কান্নায় ভেঙ্গে পড়েছেন এক মা

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মঙ্গলবার বিকেলে গুলি করে ১৯ শিশু ও দুই প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিকে হত্যা করে এক তরুণ। যা এক দশকের মধ্যে দেশটিতে ঘটে যাওয়া ভয়াবহ বন্দুক হামলার ঘটনাগুলোর একটি।

অলাভজনক সংস্থা গান ভায়োলেন্স আর্কাইভের তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রে চলতি বছর এ পর্যন্ত ২১২টি ‘নির্বিচার গুলির’ ঘটনা ঘটেছে। কোনো বন্দুক হামলায় চারজন বা তার অধিক ব্যক্তি আহত বা নিহত হলে এ ঘটনাকে নির্বিচার গুলির ঘটনা হিসেবে অভিহিত করা হয়। তবে এতে হামলাকারী অন্তর্ভুক্ত নয়।

ঘন ঘন নির্বিচার গুলির ঘটনার পরও অস্ত্রের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে আইন করতে শক্তিশালী গান লবির কারণে ব্যর্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

 

দেখে নিন যুক্তরাষ্ট্রে গত ১০ বছরে ঘটা কিছু ভয়াবহ নির্বিচার গুলির ঘটনা

মে ১৪, ২০২২ বাফালো, নিউ ইয়র্ক

এক শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তি ১০ কৃষ্ণাঙ্গকে একটি সুপারমার্কেটে গুলি চালিয়ে হত্যা করেন। তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছে এবং তিনি এখন কারাগারে রয়েছেন।

এপ্রিল ১২, ২০২২ নিউ ইয়র্ক সিটি

৬২ বছর বয়সি এক ব্যক্তি সাবওয়েতে একটি স্মোক বোমা নিক্ষেপ ও এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়লে ২৩ জন আহত হন। হামলার পরদিনই তাকে হেফাজতে নেওয়া হয়।

নভেম্বর ৩০, ২০২১ অক্সফোর্ড, মিশিগান

এক তরুণ অক্সফোর্ডের একটি উচ্চ বিদ্যালয়ে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়ছে চার শিক্ষার্থী নিহত এবং আরও সাতজন আহত হন।

এপ্রিল ১৬, ২০২১ ইন্ডিয়ানাপোলিস, ইন্ডিয়ানা

ফেডএক্সের সাবেক এক কর্মী গুলি করে আট ব্যক্তিকে হত্যা করেন। এ ঘটনায় আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছিলেন। পরে তিনি আত্মহত্যা করেন।

 

মার্চ ৩১, ২০২১ লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া

লস অ্যাঞ্জেলেসের শহরতলির একটি ভবনে হামলায় চারজন নিহত হন। এর মধ্যে একজন শিশুও ছিল। পরে সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে হেফাজতে নেওয়া হয়।

মার্চ ২২, ২০২১ বোল্ডার, কলরাডো

কলরাডো বোল্ডারের একটি সুপারমার্কেটে নির্বিচার গুলিতে ১০ জন নিহত হন। এর মধ্যে এক পুলিশ কর্মকর্তাও ছিলেন।

মার্চ ১৬, ২০২১ আটলান্টা, জর্জিয়া

আটলান্টার ডে স্পাগুলোতে হামলায় এশীয় বংশোদ্ভূত ছয় নারীসহ আটজন নিহত হন। এ ঘটনায় শ্বেতাঙ্গ এক ব্যক্তিকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০ মিলওয়াকি, উইসকনসিন

মোলসন কুর্স বেভারেজ কো ব্রুইং কমপ্লেক্সে এক বন্দুকধারীর হামলায় তার পাঁচ সহকর্মী নিহত হয়েছেন। পরে তিনিও আত্মহত্যা করেন।

আগস্ট ৪, ২০১৯ ডেটন, ওহাইও

ডেটন শহরে বর্ম পরা এক বন্দুকধারীর এলোপাতাড়ি হামলায় তার বোনসহ ৯ জন নিহত হন। পরে পুলিশ তাকে হত্যা করে।

 

আগস্ট ৩, ২০১৯ এল পাসো, টেক্সাস

এল পাসোতে ওয়ালমার্টের একটি স্টোরে এক বন্দুকধারীর হামলায় ২২ জন নিহত হন। পরে কর্তৃপক্ষ হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করে।

এছাড়া ২০১৯ সালের ৩১ মে ভার্জিনিয়ার পাবলিক ইউটিলিটির কর্মকর্তার গুলিতে ১২ সহকর্মী নিহত হন। ২০১৯ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ইলিয়নসের একটি কারখানায় এলোপাতাড়ি গুলিতে পাঁচ ব্যক্তি নিহত হন। পরে পুলিশের গুলিতে হামলাকারীর মৃত্যু হয়।

২০১৮ সালের ৭ নভেম্বর ক্যালিফোর্নিয়ায় ১২ জনকে গুলি করে হত্যা করেন নৌবাহিনীর সাবেক এক কর্মকর্তা। এর পর তিনি নিজে আত্মহত্যা করেন।

 

২০১৮ সালের ২৭ অক্টোবর পেনসিলভানিয়ার পিটার্সবার্গে ১১ জনকে হত্যা করে এক বন্দুকধারী। ২০১৮ সালের ১৮ মে টেক্সাসের হিউস্টনে ১৭ বছর বয়সি এক শিক্ষার্থীর গুলিতে নয় শিক্ষার্থী ও এক শিক্ষক নিহত হন। পরে সে আত্মসমর্পণ করে।

২০১৮ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি ফ্লোরিডার পার্কল্যান্ডের মার্জরি স্টোনম্যান ডগলাস হাই স্কুলের সাবেক এক শিক্ষার্থী গুলিতে ১৭ শিক্ষার্থী ও শিক্ষাবিদ নিহত হন।

এ ছাড়া ২০১৭ সালের ৫ নভেম্বর টেক্সাসে এক ব্যক্তি ২৬ জনকে গুলি করে হত্যা করেন। ২০১৭ সালের ১ অক্টোবর নেভাদার লাস ভেগাসে এলোপাতাড়ি গুলিতে নিহত হয় ৫৮ জন। এর পর তিনি আত্মহত্যা করেন।

২০১৬ সালের ১২ জুন ফ্লোরিডায় বন্দুকধারীর হামলায় ৪৯ জন নিহত হন। ২০১৫ সালের ২ ডিসেম্বর ক্যালিফোর্নিয়ায় একটি অনুষ্ঠানে স্বামী ও স্ত্রী মিলে ১৪ ব্যক্তিকে হত্যা করেন। পরে তারা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হন।

 

২০১৫ সালের ১ অক্টোবর অরেগনে এক বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত হন নয়জন। পরে পুলিশ তাকে হত্যা করে।

২০১৫ সালের ১৭ জুন সাউথ ক্যারোলিনায় এক শ্বেতাঙ্গ ব্যক্তি ৯ জন কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তিকে হত্যা করেন। পরে এ অপরাধে ওই ব্যক্তিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

২০১৩ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ওয়াশিংটনে নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা ১২ ব্যক্তিকে হত্যা করেন। পরে পুলিশ তাকে হত্যা করে।

 

২০১২ সালের ১৪ ডিসেম্বর কানেকটিকাটের নিউটাউনে এক বন্দুকধারী ২৬ জনকে হত্যা করেন। এর মধ্যে ২০ জন ছিল শিশু, যাদের বয়স পাঁচ থেকে ১০ বছরের মধ্যে।

২০১২ সালের ২০ জুলাই কলোরাডোতে মুখোশ পরা এক বন্দুকধারী ১২ ব্যক্তিকে হত্যা করেন। পরে শাস্তি হিসেবে তাকে একাধিক যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

সূত্র: আলজাজিরা

 

এদিকে নৃশংস এসব হত্যার প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে বিশ্বজুড়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকেও তুলোধুনা করছেন অনেকে।

আন্তর্জাতিক

আপনার মতামত লিখুন :