যাত্রীবাহি দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ১০:শঙ্কটজনক অবস্থায় ৩জন

41

>>জুট মিলের ধোঁয়া, ত্রুটিপূর্ণ রাস্তা ও বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোকে দায়ী করা হচ্ছে
অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি:জুট মিলের আগুনের ধোঁয়া, ত্রুটিপূর্ণ মহাসড়ক ও চালকের বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোর কারণে যশোরের অভয়নগরে দুই যাত্রীবাহি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে দুই চালকসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। সোমবার আনুমানিক বেলা ৩ টার সময় উপজেলার প্রেমবাগ ইউনিয়নের রোমান জুট মিলের সামনে যশোর-খুলনা মহাসড়কের এই দুর্ঘটনা ঘটে। আহত দুই চালকসহ এক নারী যাত্রীর অবস্থা আশংকাজনক।
আহতরা হলেন, হানিফ পরিবহনের চালক ঢাকার নূর ইসলাম (৫০) ও বেনাপোলগামী নয়নমনি পরিবহনের চালক যশোরের মিন্টু (৫১), অভয়নগর উপজেলার বাঘুটিয়া ইউনিয়নের বগুড়াতলা গ্রামের মুক্তার আলী গাজীর মেয়ে নিলুফা (৩০)। আহত ৭ যাত্রীকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তাদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার দুপুরে রোমান জুট মিলের পাটের অব্যবহৃত ডাস্ট মহাসড়কের পাশে ফেলে তাতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে গোটা এলাকা ধোঁয়াচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। মহাসড়কে ছুটে চলা যানবাহনসহ পথচারিরা পড়ে বিপাকে। আনুমানিক বেলা তিন টার সময় ধোঁয়ার কারণে ওই রোমান জুট মিলের সামনে খুলনাগামী হানিফ পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো-ব- ১৫-২৬১৯) বাসটি দাঁড়িয়ে যায়। এসময় বিপরীত দিক থেকে আসা বেপরোয়াগতির বেনাপোলগামী নয়নমনি পরিবহন (ঢাকা মেট্রো-ব- ১৪-১৭২১) সজরে ধাক্কা মারে হানিফ পরিবহনকে। মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই বাসের চালকসহ ৮জন যাত্রী আহত হয়।
এলাবাসাীর অভিযোগ, প্রায় সাড়ে তিনশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে যশোর-খুলনা মাহসড়কের উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন হলেও বর্তমানে এই সড়ক চলাচলে অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। দুর্ঘটনাস্থলসহ সড়কের বিভিন্ন স্থানে ছোট ছোট নালা ও স্তুপ সৃষ্টি হয়েছে। যেকারণে প্রায় ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। নয়নমনি পরিবহনের আহত যাত্রী নিলুফা জানান, বেপরোয়াগতিতে গাড়ি চলায় সামনে ধোঁয়ার কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পেলেন চালক।
ধোঁয়ার বিষয়ে রোমন জুট মিলের কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম রানা জানান, আমি বাইরে আছি। এ ব্যাপারে আমি কিছু জানি না।
নওয়াপাড়া ফায়ার সর্ভিসের স্টেশন অফিসার খান এহসান উল আলম জানান, তীব্র যানজটের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া দুই বাসের চালককে আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এসময় এক নারী যাত্রীকেও উদ্ধার করা হয়। আহত অন্যান্য যাত্রীদের প্রাথমিক চিকৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।
অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরী বিভাগের ডাক্তার শাহীনুর রহমান জানান, গুরুত্বর আহত দুই চালক নূর ইসলাম ও মিন্টুকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ হয়েছে। আহত নারী নিলুফাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
এ ব্যাপারে নওয়াপাড়া হাইওয়ে থানার (ওসি) শাহাবুদ্দিন চৌধুরী জানান, দুর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। দুর্ঘটনা কারণ উদঘাটনে তদন্ত শুরু হয়েছে। যান চলাচল স্বাভাবিক আছে।