যশোরে আজিজুর হত্যা মামলায় সিইডি’র চার্জশিট

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:03 PM, 09 March 2019

এবিসি নিউজ: যশোর সদর উপজেলার অন্দোলপোতা গ্রামের আজিজুর রহমান হত্যা মামলার চার্জশিট দিয়েছে সিআইডি পুলিশ। ৩জনকে অভিযুক্ত এবং আরো ৪জনকে অব্যাহতি চেয়ে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছেন সিআইডি পুলিশের পরিদর্শক মেহেদী হাসান । অভিযুক্তদের মধ্যে রয়েছে, আন্দোলপোতা গ্রামের আয়নাল বিশ্বাসের ছেলে তরিকুল ইসলাম, কাঠামারা গ্রামের মতিয়ার রহমানের দুই ছেলে মিল্টন হোসেন ও আমিরুল ইসলাম।
মামলার সূত্রে জানা যায়, আজিজুর একই গ্রামের তরিকুল ইসলাম এবং কাঠামারা গ্রামের আমিরুল ইসলাম ও মিল্টনের কাছে টাকা পাওনা ছিল। পাওনা টাকা চাওয়ায় তাদের সাথে আজিজুরের বিরোধের সৃষ্টি হয়।

২০১৮ সালের ৪ মার্চ আজিজুরকে টাকা দেয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। তারপর আজিজুর বাড়ি না ফেরায় স্বজরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করে তাকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়। পরদিন দুপুরে আন্দোলপোতা স্কুলের সেফটি ট্যাংকের পাশের মাটিতে রক্ত দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। এরপর সেফটি ট্যাংকের ঢাকনা খুলে আজিজুলের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে নিহতের ভাই নিছার আলী বাদী হয়ে ৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে থানা এবং পরে সিআইডি পুলিশ মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায়।
তদন্ত সূত্রে জানা গেছে, তরিকুলের কাছে আজিজুর রহমান ১ লাখ ৩৬ হাজার টাকা পাওনা ছিল। আজিজুর প্রায়ই পাওনা টাকার জন্য তরিকুলকে তাগাদা দিতেন। কিন্আতু দেনাদাররা আজিজুরকে টানা না দেয়ার ফন্দি আটে। হত্যার পরিকল্পনা করে তারা। পরিকল্পনা অনুযায়ী দেনাদার আমিরুল ও মিল্টনকে বিষয়টি জানায়। তরিকুলের পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০১৮ সালের ৪ মার্চ সন্ধ্যায় আজিজুরকে টাকা দেয়ার কথা বলে স্কুল মাঠে ডেকে নিয়ে যায়। আজিজুর টাকা গোনার সময় আসামি আমিরুল পিছন থেকে রড দিয়ে তার মাথায় আঘাত করে মাটিতে ফেলে দেয়। এরপর চাইনিজ কুড়াল দিয়ে তরিকুল ও মিল্টন কুপিয়ে মৃত্যু নিশ্চিত করে লাশ সেফটি ট্যাংকের ভিতর লুকিয়ে রাখে।
তদন্ত শেষে ওই তিনজনকে অভিযুক্ত আদালতে এ চার্জশিট দেয়া হয়েছে। হত্যার সাথে জড়িত থাকার প্রমাণ না পাওয়ায় আব্দুল হালিম, টিপু বিশ্বাস, আক্কাস আলী বিশ্বাস ও ডাক্তার মামুন বিশ্বাসের অব্যহতির আবেদন করা হয়েছে।

খুলনা বিভাগ

আপনার মতামত লিখুন :