যশোরের খড়কি থেকে নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

RanaRana
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  07:50 PM, 07 October 2021

যশোরের খড়কি থেকে নববধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

জেমস আব্দুর রহিম রানা: যশোর খড়কি থেকে সুমাইয়া বেগম (১৯) নামে এক নববধুর রহস্যজনক মৃত্যু, মরদেহ ময়নাতদন্তের পর পিতার পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। পিতৃপক্ষের দাবি যৌতুকের জন্য তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। তবে স্বামীর পরিবার বলছে পারিবারিক কলহের জের আত্নহত্যা করছে সুমাইয়া। পরিবার সূত্রে জানা যায় গত তিন মাস আগে পাইকগাছা উপজেলার পূর্বগজালিয়া গ্রামের হাবিবুর রহমান ঢালীর ছেলে মিন্টু ঢালীর সাথে একই এলাকার উওর গড়ের আবাদ গ্রামের মোঃ মুলায়েম সানার মেয়ে সুমাইয়ার ইসলামি শরিয়াত মোতাবেক পারিবারিক ভাবে বিবাহ হয়। সুমাইযার বিয়ের পর একমাস যাবত মিন্টু ঢালী স্ত্রী কে নিয়ে পূর্বগজালিয়া গ্রামে বসবাস করার পরে সেপ্টেম্বর মাসে মিন্টু স্ত্রী সহ যশোর খড়কি এলাকা পিতার ভাড়া বাড়িতে নিয়ে যায়। গত দু মাস ধরে সুমাইয়া স্বামীর সাথে ঘর সংসার করে আসছে। বিয়ের সময় কোন দাবি না থাকলেও পরে যৌতুকের জন্য সুমাইয়াকে নির্যাতন করে অাসছিল শ্বশুর বাড়ির লোকজন। সম্প্রতি মিন্টু স্ত্রীর কাছে এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। সে বাপের বাড়ি থেকে টাকা অানতে অস্বীকার করলে স্বামী -স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্য হয়। মঙ্গলবার সকালে মিন্টু স্ত্রীকে যৌতুকের টাকার জন্য এলোপাতাড়ি পিটিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে রেখে এলাকায় প্রচার করে সুমাইয়া গলায় ফাঁস দিয়ে আত্নহত্যা করেছেন। পুলিশে খবর দিলে কোতোয়ালি থানার এস আই শাহিনুর রহমান শাহীন লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠান। এস আই শাহীনুর রহমান জানান মৃতের পরিবার হত্যার অভিযোগ করেছেন। এ বিষয় কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। ময়নাতদন্তে হত্যার প্রমাণ পেলে এটি নিয়মিত মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হবে। সুমাইয়ার পিতা বলেন মেয়ে হত্যার মামলার প্রস্ততি চলছে, আমি হত্যাকারিদের ফাঁসির দাবি জানাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে।

আপনার মতামত লিখুন :