মিয়ানমারে ৭ বছরের শিশু সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত

17

মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলের শহর মান্দলে বাবার কোলে বসে থাকা ৭ বছরের এক শিশুকে গুলি করে হত্যা করেছে জান্তা বাহিনী। গতকাল মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) হঠাৎ ছুটে আসা ঘাতক বুলেটের আঘাতে মুহূর্তেই লুটিয়ে পড়ে শিশুটি।

জানা যায়, ওই শিশুর নাম খিন মিও চিট। মিয়ানমার সেনাদের ছোঁড়া গুলি তার মাথায় আঘাত হানে। পরিবারের সদস্যদের চিৎকারে উদ্ধারকর্মীরা সেখানে গিয়ে খিন মিওকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। তবে তাকে বেশিক্ষণ বাঁচিয়ে রাখা সম্ভব হয়নি। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়, মিয়ানমার সেনারা ওই শিশুর বাবাকে গুলি করতে চেয়েছিল। তবে তা গিয়ে লাগে বাবার কোলে বসে থাকা খিন মিও চিটের মাথায়। ওই সময় তারা নিজেদের বাড়িতেই বসেছিল। তবে এ ব্যাপারে সেনাবাহিনীর কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নিহত খিন মিওয়ের পরিবার জানিয়েছে, কয়েকদিন আগে খিন মিও এর বড় ভাইকে গ্রেফতার করেছে সেনারা। তার বয়স ১৯। গ্রেফতারের পর এখন পর্যন্ত তার কোনো হদিস মিলছে না। এর মধ্যেই মঙ্গলবার বাড়িতে বাবার কোলে বসে থাকা অবস্থায় ৭ বছরের শিশুকে হত্যা করল সেনারা।

শিশু খিন মিও চিট নিহতের ঘটনার পর এক বিবৃতিতে সেভ দ্য চিলড্রেন জানায়, ৭ বছরের একজন মেয়ে শিশুকে এভাবে হত্যার ঘটনা ভয়াবহ। একদিন আগে মান্দলে শহরে ১৪ বছরের এক কিশোরকেও গুলি করে হত্যার খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে ওয়াচডগ গ্রুপ অ্যাসিস্টেন্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনারের (এএপিপি) এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, জান্তা সরকারবিরোধী বিক্ষোভে সেনাদের গুলিতে এখন পর্যন্ত মিয়ানমারে নিহত হয়েছেন ২৬১ জন। যার মধ্যে অন্তত ২০ জন শিশু বলে জানিয়েছে সেভ দ্য চিলড্রেন। তবে যদিও জান্তা সরকার দাবি করছে, নিহতের সংখ্যা ১৬৪।