মা-ছেলেকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের পর তাদের বিরুদ্ধেই মামলা!

16

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় গাছে বেঁধে নির্যাতন করা সেই মা-ছেলেসহ পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে অভিযুক্তরা আদালতে মামলা ঠুকে দিয়েছে। রোববার দুপুরে নির্যাতিত মা বিবি খাদিজা এই অভিযোগ করেন।

বিবি খাদিজা জানান, ওই ঘটনার সহযোগী এলাকার প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার হওয়ার পর জামিনে এসে গত ৫ মে নোয়াখালীর চিফ জুডিসিয়াল ৩ নম্বর আমলি আদালতে আমাদেরকে হয়রানীর উদ্দেশে একটি মামলা করেছেন। এতে আমরা মা-ছেলেসহ পরিবারের ৫ জনকে আসামি করা হয়।

ওই মামলাটি কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি এফআইআর হিসেবে রুজু করার নির্দেশ দেন আদালত। কোম্পানীগঞ্জ থানা গত ১০ মে মামলাটি রেকর্ড করে (মামলা নম্বর-১৯)।

ভুক্তভোগী বিবি খাদিজা বলেন, আমরা গরিব মানুষ। আমাদেরকে গাছে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন করে জামিনে আসার পর অভিযুক্তরা এখন আবার আদালতে মামলা দিয়ে আমাদেরকে হয়রানি করছে। আমরা খেতে পাই না, মামলার খরচ জোগাড় করব কোথা থেকে। এ ঘটনার সরেজমিনে তদন্তপূর্বক ন্যায় বিচারও দাবি করেন তিনি।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আদালতে দায়ের করা মামলায় গাছে বেঁধে নির্যাতিত মা- ছেলে বিবি খাদিজা (৩৬), ছেলে আইয়ুব খান (২০), তাদের পরিবারের সদস্য ভুট্টো (৪৯), মো. জাবেদ হোসেন (৫০) ও মো. বাবলুকে (২৮) আসামি করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১ মে দুপুরে চরএলাহী ২নং ওয়ার্ডের চরকলমী গ্রামের রাজনৈতিক প্রভাবশালী নেতা শাহাদাত নগরের জাহাঙ্গীর ও তার ছেলে মাসুদসহ সংঘবদ্ধ চক্রের হাতে মা-ছেলেকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছিল। যে ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছিল।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক মামলাটি নথিভুক্ত করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনা উদ্ঘাটনের চেষ্টা চলছে।