মহেশপুরে শিশুর মৃত্যুর সপ্তাহ পার না হতেই ফের বালি উত্তোলনে দৌঁড়-ঝাপ শুরু

17

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি:অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করা পুকুরে ডুবে শিশু নাহিদ ইসলাম (১১) নামের এক শিশুর করুন মৃত্যুর ঘটনার ৭ দিন পার হতে না হতেই ফের বালি উত্তোলনে বিভিন্ন মহলে দৌঁড়-ঝাপ শুরু হয়েছে।
এদিকে বালি উত্তোলনকারীরা নিহত শিশুটির পরিবারের সাথে মিমাংসার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে পাতিবিলা গ্রামের একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছেন।
প্রশাসনের নাকের ডোগায় এলাকার প্রভাবশালী শাহাজান আলী ও শাহীন মিয়া দীর্ঘ ৫ বছর ধরে অবৈধভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালি উত্তোলন করে আসছে। প্রভাবশালী মহলটি প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের ম্যানেজ করে বাধাহীন ভাবেই বালি উত্তোলন করে আসছে। ইতিপুর্বে অবৈধ বালি উত্তোলন পুকুরে ডুবে এলাকার আরো ৩ শিশুর করুণ মৃত্যু হলেও প্রশাসন নিশ্চুপ ভুমিকা পালন করেছে।
মঙ্গলবার দুপুরে মহেশপুর উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত নবাগত জেলা প্রশাসক মজিবর রহমানের সাথে মতবিনিময় সভায় অবৈধ বালি উত্তোলনের বিষয় নিয়ে বক্তব্য রাখেন পৌর সভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজি আতিয়ার রহমান।
উল্লেখ্যঃ গত বুধবার (১৭মার্চ) দুপুরে মহেশপুর পৌর এলাকার পাতিবিলা গ্রামের আবেদ শিকদারের ছেলে নাহিদ ইসলাম অবৈধ বালি উত্তোলন করা পুকুরে ডুবে যায়। পরে প্রায় ১০ ঘন্টা পর খুলনা থেকে ডুবুরি এসে শিশু নাহিদ ইসলামের মৃত দেহ পানির নিচ থেকে উদ্ধার করে।