মণিরামপুরে শাশুড়ির বিরুদ্ধে জামাই’র মামলা 

12

মণিরামপুর(যশোর)প্রতিনিধি:মণিরামপুরে শ্বশুরকে দ্বিতীয় বিয়ে দেয়ার ঘটনায় শাশুড়ি সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে জামাইকে মারপিট করিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার মদনপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে জামাইয়ের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনায় জামাই শাশুড়িকে হামালার নির্দেশদাতা উল্লেখ করেহ ৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছেন।
অভিযুক্তরা হলেন-উপজেলার মদনপুর গ্রামের আলী হোসেন ডাকুর ছেলে হারুণ হোসেন (২১), মন্টুর ছেলে আকাশ হোসেন (২৫), আমজাদ হোসেন লাবুর ছেলে সজিব হোসেন (২২) ও আকবর আলীর ছেলে তুষার হোসেন।
জামাই আবিদ হাসানের অভিযোগ, প্রবাসী শ্বশুর আনিচুর রহমান বাড়িতে না থাকার সুবাদে শাশুড়ি নানা অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়েন। বিদেশ থেকে পাঠানো শ্বশুরের ২২ লাখ টাকাসহ স্বর্ণালংকারের হিসেব দিতে না পারায় বছর তিনেক আগে শাশুড়িকে তালাক দেন শ্বশুর। আবিদ (জামাই) ও তার স্ত্রীসহ (সুমাইয়া)সহ পরিবারের স্বজনদের উপস্থিতিতে প্রায় দুই মাস আগে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পুতুল আক্তারের সাথে শ্বশুরের বিয়ে দেয়া হয়। এতে ক্ষিপ্ত হন শাশুড়ি পারভীনা খাতুন। এরই জের ধরে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে স্থানীয় মদনপুর বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে তাকে মারপিট করা হয়। এসময় ঠোকাতে আসলে বর্তমান শাশুড়ি পুতুল আক্তারকেও মারপিট করা হয়। স্বজনরা উদ্ধার করে ওই রাতেই মণিরামপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পরদিন বুধবার আবিদ হাসান থানায় এই অভিযোগ করেন।
মেয়ে সুমাইয়াও একই অভিযোগ করেছেন।
থানার এএসআই জোবায়ের হোসেন জানান, এ ঘটনায় তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।