মণিরামপুরে একের পর এক অগ্নিকান্ড

13

>>৯ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই #১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতির দাবি
মণিরামপুর প্রতিনিধি:যশোরের মণিরামপুরের পৃথক দুটি স্থানে ৯ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় সাড়ে ১০ লাখ টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। শনিবার দুপুরে পৌর শহরের মাছ বাজারে এবং শুক্রবার রাতে উপজেলার মুজগুন্নী নতুন বাজার মুনছুর মোড়ে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।
শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে পৌর শহরের মাছ বাজারের পাশে মাছ ব্যবসায়ী আহম্মাদ আলীর মাছের ক্যারেট গোডাউনে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এসময় ওই বাজারে অন্যান্য ব্যবসায়ীরা আতংকিত হয়ে পড়েন। গোডাউন মালিক আহম্মাদ আলী জানান, অগ্নিকান্ডে ভম্মিভুত হয়ে তার মাছের ক্যারেটসহ প্রায় সাড়ে ৫ লক্ষধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে।
অপরেিদক শুক্রবার রাত ১টার দিকে উপজেলার মুজগুন্নী গ্রামের মুনছুর মোড় নামক নতুন বাজারে ৮টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠানের মালিকরা হলেন-ফিরোজ ও কবির হোসেনের চায়ের দোকান, হাফেজ আসাদের মুদি দোকান, আসাদের কম্পিউটারের দোকান, পল্লী ডাক্তার বাবুল আক্তারের দোকান, শরিতুল্লাহ’র খাবারের হোটেল, বশির উদ্দিনের কাঁচা তরকারীর দোকান ও মশিয়ারের সাইকেল গ্যারেজ। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনিসহ আওয়ামীলীগ নেতা প্রকৌশলী আলমগীর হোসেনসহ সর্বস্তরের মানুষ ছুঁটে যান। এরআগের দিন পৌর শহরের তাহেরপুরে ভুট্টোর সাইকেল গ্যারেজ ও সার্ভিস সেন্টারে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।
এ ব্যাপারে বাজার কমিটির সভাপতি ডাক্তার নাজিম উদ্দিন জানান, অগ্নিকান্ডে ভম্মিভুত হয়ে প্রায় ৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত কিভাবে তা এখন পরিস্কার হওয়া যায়নি।
মণিরামপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লিডার আজিম উদ্দিন জানান, পৃথক অগ্নিকান্ডের ঘটনা বিদ্যুতের শর্টসার্কিট থেকে ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এতে প্রায় সাড়ে ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।