ভিকারুননিসার অধ্যক্ষের অডিও রেকর্ড নিন্দনীয়-হাইকোর্ট

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  07:44 PM, 10 August 2021

>>৩০ আগস্টের মধ্যে অধ্যক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ
এবিসি ডেস্ক:
ভিকারুননিসা নুন স্কুল অ্যান্ড কলেজের বহুল আলোচিত অধ্যক্ষ কামরুন নাহারের ভাইরাল হওয়া কল রেকর্ডের বক্তব্য সত্য হলে তা নিন্দনীয় বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট।

এ ঘটনায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে ৩০ আগস্টের মধ্যে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে হওয়া তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে। আরও খবর>>ভিকারুননিসা স্কুল অধ্যক্ষের অশ্লীল গালিগলাজ ও হুমকির ফোনালাপ ভাইরাল

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মোহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার এই আদেশ দেন।

শুনানিতে আদালত বলেন, ‘ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহার ফোনালাপে যে ভাষা ব্যবহার করেছেন তা যদি সত্যি থাকলে অবশ্যই নিন্দনীয়। এটা অপ্রত্যাশিত। তার মুখ থেকে এ ধরনের ভাষা আশা করা যায় না।’

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল হারুন রাসেল।

গত ৮ আগস্ট ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহারের ভাইরাল হওয়া কল রেকর্ডের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে তাকে পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।

দুই শিক্ষার্থীর অভিভাবক মোহাম্মদ মোরশেদ আলম নামে এক ব্যক্তি এই রিট দায়ের করেন।

রিটে নৈতিকস্খলনের দায়ে অধ্যক্ষকে পদ হতে অব্যাহতি দেয়ার আরজি জানানো হয়েছে।

একইসঙ্গে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আরজি জানানো হয়।

মামলার বিবরণে জানা যায়, রাজধানী ঢাকার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ কামরুন নাহারের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির গভর্নিং বডির সদস্য মনিরুজ্জামান খোকনের ২৭ মিনিট ৩ সেকেন্ডের একটি ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনা ঘটে।

অভিভাবক ফোরামের উপদেষ্টা মীর সাহাবুদ্দিন টিপুর সঙ্গে অধ্যক্ষের ফোনালাপ ফাঁসের পর গত ২৮ জুলাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ফাঁস করা হয় এই ফোনালাপটি। এ ঘটনায় গত সোমবার হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করা হয়।

ঢাকা বিভাগ

আপনার মতামত লিখুন :