ভারতের সংগীত জগত ভাসছে শোকের সাগরে

এবার পরপারে গেলেন বাপ্পী লাহড়ী, এরআগে যান আরও দুই নক্ষত্র

আন্তর্জাতিক ডেস্কআন্তর্জাতিক ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  03:47 PM, 16 February 2022

ভারতের সংগীত অঙ্গনে ফের নামলো শোকের ছায়া। একটি শোক কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই ঝরে যাচ্ছে আরেক কৃতি শিল্পী। আজ বুধবার হঠাৎ-ই চলে গেলেন কিংবদন্তি গায়ক বাপ্পী লাহিড়ী। এনিয়ে পরপর ৩ গুণি শিল্প খুব কাছাকাছি সময়ে চলে গেলেন পরপারে।

কণ্ঠের জাদুতে গত কয়েক দশক ধরে সংগীতের মাধ্যমে মাতিয়ে রেখেছিলেন যারা শ্রোতাসহ সবাইকে। মৃত্যু যেনো হঠাৎ করেই নাড়া দিয়ে বসেছে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে। একে একে ঝরে পড়ছে নক্ষত্রগুলো। তবে খুব কাছাকাছি সময়ে এমন চলে যাওয়া একটু বেশিই বেদনাদায়ক।

তেমনটাই ঘটলো তিন কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী লতা মঙ্গেশকর, সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায় ও বাপ্পী লাহিড়ীর ক্ষেত্রে। যাদের কণ্ঠের যাদুতে মুগ্ধ ছিলেন কোটি কোটি মানুষ।

লতা মঙ্গেশকর: রবিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৯২ বছর। ভারতের ইতিহাসে সর্বকালের সবচেয়ে সফল গায়িকা তিনি।

১৯৪২ সালে ১৩ বছর বয়সে তার গানের ক্যারিয়ার শুরু হয়। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে তিনি গেয়েছেন ৩০ হাজারের বেশি গান। তার কণ্ঠে সুর পেয়েছে বিভিন্ন ভাষা। বরেণ্য এই শিল্পী ভারতের সর্বোচ্চ সম্মাননা ‘ভারত রত্ন’ পদকে ভূষিত হয়েছেন। এ ছাড়া দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারসহ সব প্রাপ্তিই যুক্ত হয়েছে তার ঝুলিতে।

 

সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়: উপমহাদেশের প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৯০ বছর। ভারতের তৃণমূল সংসদ সদস্য শান্তনু সেন টুইট করে এ তথ্য জানান। গেলো ২৭ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার অসুস্থ হয়ে পড়েন প্রবাদ প্রতিম সংগীতশিল্পী। ওই দিনই তাকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ফুসফুসে সংক্রমণ হয়েছিলো তার। ঘটনাচক্রে তার দুই দিন আগেই কেন্দ্রের পদ্মশ্রী পদক প্রত্যাখ্যান করেছিলেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়।

১৯৩১ সালের ৪ অক্টোবর দক্ষিণ কলকাতার ঢাকুরিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন সন্ধ্যা মুখোপাধ্যায়। তার সংগীত শিক্ষার মূল কান্ডারি ছিলেন দাদা রবীন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়। ১৯৪৫ সালে মাত্র ১৪ বছর বয়সে প্রথম গান রেকর্ড করেন তিনি।

 

১৯৪৮ সালে প্রথমবার প্লেব্যাক করেন, সিনেমার নাম ‘অঞ্জনগড়’। ওই বছর তার কণ্ঠে আরো তিনটি গান প্রকাশিত হয়। যার সুবাদে গায়িকা হিসেবে পরিচিতি পেয়ে যান।

১৯৫০ সালে মুম্বাই পাড়ি দিয়েছিলেন বাংলা বেসিক আধুনিক গানের সম্রাজ্ঞী সন্ধ্যা। ১৭টি হিন্দি ছবিতে প্লেব্যাক করেন তিনি। শচীন দেব বর্মণের হাত ধরেই শুরু হয়েছিলো তার বম্বে সফর। তবে সেখানে সন্ধ্যার প্রথম প্লেব্যাক করিয়েছেন সুরকার অনিল বিশ্বাস। সিনেমার নাম ‘তারানা’।

বাপ্পী লাহিড়ী: বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) শেষ রাতে ৬৯ বছর বয়সে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। সংবাদ সংস্থা পিটিআই এ খবর নিশ্চিত করেছে।

গত বছর এপ্রিলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। এর কিছুদিন পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন তিনি।

কিংবদন্তি গায়ক বাপ্পী লাহিড়ী আর নেই

১৯৭০ থেকে ৮০-এর দশকে হিন্দি ছায়াছবির জগতে অন্যতম জনপ্রিয় নাম বাপ্পী লাহিড়ী। হিন্দিতে ‘ডিস্কো ডান্সার’, ‘চলতে চলতে’, ‘শরাবি’, বাংলায় অমর সঙ্গী, আশা ও ভালোবাসা, আমার তুমি, অমর প্রেম প্রভৃতি ছবিতে সুর দিয়েছেন। গেয়েছেন একাধিক গান। ২০২০ সালে তার শেষ গান ‘বাগি-৩’ এর জন্য। কিশোর কুমার ছিলেন বাপ্পীর সম্পর্কে মামা। বাবা অপরেশ লাহিড়ী ও মা বাঁশরী লাহিড়ী দুইজনেই সংগীত জগতের মানুষ। ফলে একমাত্র সন্তান বাপ্পী ছোটবেলা থেকেই গানের প্রতি আকৃষ্ট ছিলেন। মা-বাবার কাছেই পান প্রথম গানের তালিম।

আন্তর্জাতিক

আপনার মতামত লিখুন :