বুধবার অফিস খোলা থাকবে:বৃহস্পতিবার থেকে ছুটি

26

বুধবার সরকারি অফিস খোলা থাকবে। রমজান মাস ৩০ দিন ধরে সরকারি যে ছুটির তালিকা তৈরি করা হয়েছে, বিশেষ পরিস্থিতিতে সেটাই অনুসরণ করছে সরকার। ছুটির ক্যালেন্ডার অনুযায়ী বুধবার অফিস খোলা থাকবে।

মঙ্গলবার বিকেল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শেখ ইউসুফ হারুন গণমাধ্যমকে এ কথা বলেন।

সচিব বলেন, চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্তের পর ঈদুল ফিতরের ছুটি নির্ধারিত হবে। এটা (স্টিল আন-নোন)। চাঁদ দেখা কমিটির মিটিং হবে তারপর।

এদিকে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, বর্তমান এই বিশেষ পরিস্থিতিতে এই ছুটি দেয়া হচ্ছে। আমরা চাই না কেউ ঢাকা থেকে বাইরে চলে যাক। তাই ছুটি সংক্ষিপ্ত করা হয়েছে, যাতে সবাই ঢাকায় থেকে যায়। বুধবারও অফিস চলবে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে বলা হয়েছে, আপনাদের কর্মীদের ঢাকায় রেখে দেন।

পবিত্র ঈদুল ফিতরের ছুটি শুরু হচ্ছে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে। প্রতিবছর সরকারের সাধারণ ছুটিসহ ধর্মীয় ও ঐচ্ছিক ছুটিগুলো নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে মন্ত্রিসভায় চূড়ান্ত করা হয়। এবারো গত ২ নভেম্বর ঈদের ছুটি নির্ধারণ করা হয়েছে ১৩, ১৪ ও ১৫ মে। আর ১৬ মে কেবল মুসলিম সরকারি কর্মচারীরা ঐচ্ছিক ছুটি কাটাতে পারবেন।

এদিকে, ঈদের ছুটি বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে- এরকম বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে সোশাল প্ল্যাটফরমে। এতে সরকারি-বেসরকারি কর্মচারীসহ অনেকে বিভ্রান্ত হচ্ছেন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৩ বা ১৪ মে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হবে। অর্থাৎ রোজা ২৯ দিনে হলে ঈদের পরের দুই দিন ছুটি, যদিও ওই দুই দিনই শুক্র ও শনিবার। আর রোজা ৩০ দিনে হলে ঈদের আগে এবং পরে দুই দিনের ছুটি। অর্থাৎ ঈদ যেদিনই হোক ছুটি তিন দিন। যদিও চলমান লকডাউনের সীমা ১৬ মে পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে সরকার।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিধি অনুবিভাগের উপসচিব কাজী মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম মঙ্গলবার দুপুরে বলেন, ঈদের ছুটি ১৩ থেকে ১৫ মে পর্যন্ত। এটা অনেক আগে থেকেই ঘোষিত। এখানে বিভ্রান্তি ছড়ানোর কিছু নেই। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, রোজা ২৯ দিনে শেষ হলেও ছুটির কোনো পরিবর্তন হবে না। অর্থাৎ বুধবার অফিস শেষে বৃহস্পতিবার থেকে ঈদের ছুটি শুরু হচ্ছে।

এবছর মোট ২২ দিন সরকারি ছুটি ভোগ করছে বাংলাদেশ, যার মধ্যে সাত দিন পড়েছে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গত ২ নভেম্বর ভার্চুয়াল মন্ত্রিসভা বৈঠকে ২০২১ সালের ছুটির তালিকা অনুমোদন দেয়া হয়।

এরপর মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানিয়েছিলেন, চলতি বছরের জন্য ১৪ দিন সাধারণ ছুটি এবং নির্বাহী আদেশে আট দিন সরকারি ছুটি মিলিয়ে মোট ২২ দিন ছুটি থাকবে। এর মধ্যে সাত দিনের ছুটি শুক্রবার ও শনিবারের সাপ্তাহিক ছুটির দিনে পড়েছে।