পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়ে ৫০ জনকে হত্যা করলো ইরান

13

এবিসি ডেস্ক:পাকিস্তানের বেলুচিস্তানের কয়েক কিলোমিটার ভেতরে ঢুকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছে ইরানের সেনাবাহিনীর সবচেয়ে দক্ষ শাখা স্পেশ্যাল ফোর্স ইরানি রেভল্যুশনারি গার্ড কোর (আইআরজিসি)। এই হামলায় নিহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন কথিত সন্ত্রাসবাদী।
ইরানের সংবাদ সংস্থা ইরনা, তুরস্কের সংবাদসংস্থা আনাদোলু নিউজ এজেন্সি এবং আল-জাজিরা জানিয়েছে, গুপ্তচর মারফত আগাম খবরের ভিত্তিতে মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) গভীর রাতে বেলুচিস্তানের ইরান সীমান্তের কাছে রুক্ষ পাহাড়ি এলাকায় সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালায় ইরানি সেনারা। তাদের অভিযানে মৃত্যুবরণ করেছে হয়েছে জইশ-আল-আদল সংগঠনের বহু জঙ্গি এবং বেশ কয়েকজন পাক সেনা। পাকিস্তান শিবিরের নিহতের সংখ্যা ৫০-এর কাছাকাছি। অভিযানে জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন ইরানি সৈনিক।
ইরানের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তাদের দুই সেনা গত আড়াই বছর ধরে জইশ-আল-আদলের হাতে পণবন্দি ছিল। তাদের নিরাপদে উদ্ধার করতেই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানো হয়েছে। সেনার এই অভিযান সফল হয়েছে। পাক সেনার মদতে সুন্নি মতাবলম্বী জঙ্গি সংগঠন জইশ-আল-আদল এর আগে বহুবার আত্মঘাতী হামলা চালিয়ে অনেক ক্ষয়ক্ষতি করেছে শিয়া মতাবলম্বী ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের।
অভিযোগ রয়েছে, পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর ছত্রছায়ায় বেড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি জঙ্গি সংগঠন। এদের মধ্যে বেশ কয়েকটি ছায়াযুদ্ধ চালাচ্ছে শিয়া-অধ্যুষিত ইরানের বিরুদ্ধে। তাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে সুন্নি জঙ্গি সংগঠন বেলুচিস্তানের জইশ-আল-আদল। সংগঠনটির দাবি, তারা ইরান সরকারের বিরুদ্ধে সে দেশের বেলুচ নাগরিকদের রক্ষার জন্য লড়াই করছে। আগেও বেশ কয়েকবার ইরানের সেনাবাহিনীর ওপর হামলা চালিয়েছে জেহাদি সংগঠনটি। ২০১৯ সালে বেলুচিস্তানে ইরান ও পাকিস্তানের সীমান্ত এলাকায় ২৭ জন ইরানি সেনাকে হত্যা করে জইশ-আল-আদল। এর জন্য পাকিস্তানকে কড়া মূল্য দিতে হবে বলে হুমকি দিয়েছিলেন ইরানের সেনাপ্রধান মেজর জেনারেল মহম্মদ আলি জাফারি।
সূত্র : সময় নিউজ