পরকীয়া প্রেমিকের হাত ধরে দুই সন্তানের জননী উধাও

12

বেনাপোল প্রতিনিধি:বেনাপোলে পরকীয়ার টানে দেড় বছরের শিশুসহ দুই সন্তানকে রেখে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ী দিয়েছেন এক গৃহবধূ। তবে শিশুটিকে নিয়েই বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন কিন্তু তাকে স্থানীয় একটি দোকানে রেখে যান ওই গৃহবধূ। পরে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে তার বাবার কাছে হস্তান্তর করেছে। শিশুটির নাম আলিফ হাসান
জানা যায়, নড়াইল জেলার কালিয়ার কালু মিয়া স্ত্রী সন্তান নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে বেনাপোলের সাদীপুর গ্রামের খেয়াঘাট পাড়া এলাকায় বসবাস করে আসছেন।
কালু মিয়া বলেন, তার স্ত্রী পরকীয়ায় আসক্ত ছিল। সে আমার সংসার করবে না বলে পূর্বে কয়েকবার জানায়। বিষয়টি ঠিক হয়ে যাবে বলে আমি প্রতিত্তর করিনি, বরং তাকে বুঝিয়েছি। গতকাল আমার অজান্তে আমার ৮ বছরের মেয়েকে বাড়িতে রেখে, দেড় বছরের বাচ্চাটিকে নিয়ে কোন এক সময় বাড়ি থেকে বের হয়। পরবর্তীতে সে আমাকে ফোনে জানায় আমার বাচ্চাকে সে বেনাপোল বাজারে এক দোকানে রেখে চলে গেছে। একথা শুনে তৎক্ষনাৎ আমি খোঁজ খবর নিয়ে পাইনি। শনিবার বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের মাধ্যমে আমি আমার সন্তানকে পেয়েছি। সন্তানকে ফিরে পেয়ে পুলিশকে ধন্যবাদ জানান কালু মিয়া।
বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, শুক্রবার (২ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৭টার সময় মুন্নি বেগম নামে এক নারী তার শিশু বাচ্চাটিকে বেনাপোল বাজারের একটি চায়ের দোকানে ফেলে চলে গেছেন। দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও শিশুটির মা ফিরে না আসায় দোকানদার শিশুটিকে নিয়ে থানায় এসে বিস্তারিত জানায়। এরপর বাচ্চাটিকে পুলিশের হেফাজতে রেখে তার পরিবারের খোঁজ নিতে পুলিশ কাজ করে। অবশেষে পোর্ট থানা পুলিশ শিশুটির পরিবারকে শনাক্ত করে। এরপর স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে শিশুটিকে তার বাবার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।