নড়াইলে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

16

নড়াইল প্রতিনিধি:নড়াইলের লোহাগড়ায় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী ফোরকান উদ্দিন শাকিলকে (৩৭) ফাঁসির দন্ডাদেশসহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দিয়েঠেন নড়াইল জেলা ও দায়রা জজ মুন্সী মোঃ মশিয়ার রহমান। রায় ঘোষণার সময় আসামি ফোরকান আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

বৃহস্পতিবার নড়াইল জেলা ও দায়রা জজ আদালতে, পেনাল কোডের ৩০২ ধারায় মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করে এই মামলার রায় ঘোষণা করেন তিনি ।
মামলার সূত্রে জানা গেছে, শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলার মজিবুর রহমান সরকারের মেয়ে মর্জিনা বেগম বিথির (২৫) সাথে পিরোজপুরের তেজদাশকাটি গ্রামের তোফায়েল খানের ছেলে ফোরকান উদ্দিন ওরফে শাকিল খানের বিয়ে হয়। মর্জিনার প্রথম ঘরের ৫ বছর বয়সী একটি শিশু পুত্রকে নিয়ে ফোরকানের সাথে নড়াইলের লোহাগড়া পৌরসভার গোপীনাথপুর গ্রামে খলিল শেখের বাড়ির ভাড়াটে হিসেবে বসবাস করে আসছিলেন এই দম্পতি। তারা স্বামী-স্ত্রী দু’জনে লক্ষীপাশার বাজারের একটি হোটেলে বাবুর্চির কাজ করতেন। ২০১৫ সালের ১১ অক্টোবর মর্জিনা তার শিশু পুত্র মোস্তাফিজসহ স্বামী ফোরকানের সাথে রাতে প্রতিদিনের মত বাসা বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে আসামি ফোরকান তার স্ত্রী মর্জিনাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরে ওই শিশু পুত্র সকালে ঘুম থেকে উঠে তার মায়ের রক্তাক্ত দেহ দেখে চিৎকার করতে থাকে। এসময় বাড়ির মালিক খলিল শেখ এসে ঘরের মধ্যে মর্জিনার রক্তাক্ত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে লোহাগড়া থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নড়াইল সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় মর্জিনার পিতা মজিবুর রহমান বাদী হয়ে ১৩ অক্টোবর ২০১৫ লোহাগড়া থানায় ফোরকানকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মামলার অধিকতর তদন্তের জন্য মামলাটি সিআইডিতে প্রেরন করে। পরে পালাতক আসামী ফোরকানকে সিআইডি পুলিশ গ্রেফতার করে। আসামি ফোরকান আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। পরে বিজ্ঞ বিচারক সাক্ষীগনের সাক্ষ্য গ্রহন শেষে বৃহস্পতিবার সকালে এ সাজা প্রদান করেন।