নড়াইলে ভোট কেন্দ্রে দু’পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে পুলিশের গুলি:আহত ২০

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  07:46 PM, 24 March 2019

>>>জাল ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের সংঘর্ষ
নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলের কালিয়া উপজেলার নোয়াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে নৌকা ও আনারস মার্কার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২০জন আহত হয়েছেন। পুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনতে সক্ষম হয়। অধাঘন্টা ভোটগ্রহণ স্থগিত থাকলেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আসার পর পরবর্তীতে ভোট গ্রহণ আবার শুরু হয় হয়।
নোয়াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার বিষ্ণুপদ সাহা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে আজ ২৪ মার্চ রোববার সকাল ৮টা থেকে নড়াইলের তিন উপজেলায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়। পড়ুন>>>নড়াইলের কালিয়ায় সংঘর্ষে পুলিশের গুলি

দুপুর ১২টার দিকে কালিয়া উপজেলার নোয়াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোট চলাকালে জালভোট চলছে বলে নৌকা ও আনারস মার্কার প্রার্থীর সমর্থকরা একে অপরকে দোষারোপ করে হট্টগোল শুরু করে। হট্টগোলের এক পর্যায়ে সংঘর্ষে রুপ নেয়। দু’পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে সাগর শেখ, বাদশা মিয়া, জিয়াদ, বাঁধন, জিয়াউদ্দিন, আনিচ, হাফিজুর রহমান, ইমরান হোসেন, রনি, রাইসুল ইসলাম, রাশিদুল হাসান, আব্বাস উদ্দিন, ইকবাল হোসেনসহ উভয় গ্রুপের কমপক্ষে ২০জন আহত হন। আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সংঘর্ষ থামিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। ঘটনার পর নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা ও পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন পিপিএম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন বলেন, নোয়াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে দু’পক্ষের মধ্যে একটু গোলযোগ হলেও সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।
উল্লেখ্য, কালিয়া উপজেলায় আ’লীগের মনোনীত প্রার্থী হচ্ছেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণপদ ঘোষ (নৌকা)। নৌকা প্রতীকের সঙ্গে লড়ছেন আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এসএম হারুনার রশীদ (আনারস)।

খুলনা বিভাগ

আপনার মতামত লিখুন :