নড়াইলে এসিড নিক্ষেপের পর এবার বসত ঘরে আগুন

29

নড়াইল প্রতিনিধি:নড়াইল সদর উপজেলার বাহিরগ্রামে তানিয়া জামান (২৪) নামে এক নারীর শরীরে এসিড নিক্ষেপের সাড়ে ৪ মাস পর এবার ভুক্তভোগী ওই নারীর বসত ঘরে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে গত ১ জানুয়ারি দিবাগত রাত ২টার দিকে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
অভিযোগে জানা গেছে, পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে নড়াইল সদর উপজেলার বাহিরগ্রামের মৃত কামরুজ্জামান মোল্যার মেয়ে তানিয়া জামানের উপর গত বছরের ২০ আগস্ট রাত সাড়ে ৯টার দিকে পাশ্ববর্তী কোড়গ্রামের বিপ্লব হোসেনসহ বাহিরগ্রামের কয়েকজন দুর্বৃত্ত এসিড নিক্ষেপ করে। এতে তানিয়া জামানের পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গা এসিডে ঝলসে যায়। ঘটনা উল্লেখ করে তানিয়ার বোন নড়াইল সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন রয়েছে। তানিয়া জানান, ধান ও বিছালীর ব্যবসার কথা বলে বিপ্লব হোসেন ও তার সহযোগিরা আমার কাছ থেকে ১৫ লাখ টাকা ধার নেয়। পাওনা টাকা চাওয়ায় আমার উপর ক্ষিপ্ত হয় বিপ্লব ও তার সহযোগিরা। তারপর ঘটে এসিড নিক্ষেপের ঘটনা।
ভুক্তভোগীর স্বজনরা জানান, এসিডে তানিয়ার শরীর ঝলসে দেয় বিপ্লবসহ তার সহযোগিরা। তারা একের পর এক ষড়যন্ত্র শুরু করে তানিয়া ও তার স্বজনদের উপর হুমকি-ধামকি এমনকি মারপিটের ঘটনা অব্যাহত রাখে তারা। গত ১ জানুয়ারি দিবাগত গভীর রাতে তানিয়ার পিতার বসত ঘরে লাগিয়ে তানিয়া ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের পুড়িয়ে মারতে উদ্যত হয় প্রতিপক্ষ বিপ্লব হোসেন ও তার সহযোগিরা। আগুনের লেলিহান শিখায় ঘরের অংশ বিশেষ ও পোষাক পুড়ে গেলেও জানে রক্ষা পেয়েছেন তানিয়া ও পরিবারের সদস্যরা।বসত ঘরে আগুন দেয়ার পর পুলিশ কর্মকর্তা আতাউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন।
এ ব্যাপারে নড়াইল সদর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।বিষয়টি তদন্তপূর্বক যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা আতাউর রহমান।
এ ব্যাপারে বিপ্লব হোসেনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।