না ফেরার দেশে ক্রিকেটার রুবেল

ঢাকা অফিসঢাকা অফিস
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:17 PM, 19 April 2022
মারা গেলেন ক্রিকেটার রুবেল

ক্যান্সার কেড়ে নিলো জাতীয় দলের ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেলের প্রাণ। মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) বিকালে তিনি পাড়ী দেন না ফেরার দেশে। তার পারিবারিক সূত্র  নিশ্চিত করেছে।

মাত্র ৪০ বছর বয়সে এভাবে চলে যাবেন বাঁহাতি স্পিনার, তা কল্পনা করতেও কষ্ট হয়।

চিকিৎসকরা জানান, তার মস্তিষ্কে বাসা বেঁধেছিল টিউমার। বাঁচতে  চিকিৎসা নিয়েছেন দেশে। ভারত ও সিঙ্গাপুরেও চিকিৎসা নিয়েছেন বিভিন্ন সময়ে। শুরুতে কিছুটা উন্নতি দেখা দিয়েছিল। কিন্তু কিছুদিন পর ধীরে ধীরে অবনতির দিকে গড়ায়।

গত বছরের শেষ দিকে শারীরিক অবস্থা খারাপ হতে থাকলে আবার ভারতে চিকিৎসা করাতে যান রুবেল। কিন্তু ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা ফেরার পর থেকে ক্রমাবনতি ঘটে তার। গত কিছুদিন ধরে একদমই খেতে পারছিলেন না। ফলে শরীর ভীষণ দুর্বল হয়ে পড়েছিল। অবস্থা সংকটজনক হওয়ায় ১৪ মার্চ হাসপাতালে নেয়া হয়। স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকার পর সাধারণ কেবিনে স্থানান্তর করা হয় তাকে। এরপর অবস্থা কিছুটা ভালো হওয়ার পর বাসাতে নিয়ে যাওয়া হয়  রুবেলকে।

কিন্তু বেশিদিন বাসায় থাকতে পারেননি। কয়েকদিনের মাথায় আবার গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। আজ (মঙ্গলবার) বিকালে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়ার পথেই তিনি মারা যান।

জাহিদুর রহমান চৌধুরী নামে তার এক বন্ধু গণমাধ্যমকে জানান, ‘মোশাররফ হোসেন রুবেল আজ বিকাল ৫টায় মারা গেছেন। বাসায়ই ছিলেন, শারীরিক অবস্থা খারাপ হলে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়া হয়। হাসপাতালে পৌঁছার পর ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।’

২০১৯ সালের মার্চে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে রুবেলের। সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে সে বছরের ১৯ মার্চ নিউরো সার্জন এলভিন হংয়ের তত্ত্বাবধানে সফল অস্ত্রোপচার হয়েছিল। এরপর দেশে ফিরে এলেও কেমো এবং রেডিও থেরাপির জন্য নিয়মিত সিঙ্গাপুরে যাওয়া-আসার মধ্যে থাকতে হয়েছে। ওই বছরের ডিসেম্বরে সর্বশেষ কেমো দেওয়া হয়। এক বছর ফলোআপে ছিলেন তিনি।

এসবের মাঝেই ২০২০ সালে সুস্থ হয়ে মাঠে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু নভেম্বরে ফের অসুস্থ হয়ে পড়ায় সবকিছু আবারও থমকে যায়। ২০২১ সালের জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে এমআরআই করার পর দেখা গেছে, পুরনো টিউমারটি আবার নতুন করে বাড়ছে। তারপর থেকে আবার শুরু হয়েছে কেমোথেরাপি। সব মিলিয়ে ২৪টি কেমোথেরাপি নিয়েছিলেন রুবেল।

২০০৮ সালে জাতীয় দলে অভিষেক এই স্পিনারের। দেশের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে খেলে ১ উইকেট পান। দল থেকে বাদ পড়েন। এরপর তাকে ২০১৩ সালে শ্রীলঙ্কা সফরে নিয়েছিল দল। কোনও ম্যাচ খেলার সুযোগ না পেয়ে আবার বাদ পড়েন। তিন বছর পর ২০১৬ সালে আফগানিস্তান সিরিজে তাকে দলে নেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। আট বছর পর জাতীয় দলের জার্সিতে মাঠে নেমে ৩ উইকেট পান। দলকে জেতাতে বড় ভূমিকাও রাখেন।

বাংলাদেশের জার্সিতে ৫ ওয়ানডে খেলেছেন রুবেল। পেয়েছেন ৪ উইকেট, আর রান করেছেন ২৬। জাতীয় দলে আর কোনও ফরম্যাটে সুযোগ না পেলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে ছিলেন দুর্দান্ত। প্রথম শ্রেণি ক্রিকেটে খেলা ১১২ ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ৩৯২। অন্যদিকে ২৩.৯৪ গড়ে করেছেন ৩ হাজার ৩০৫ রান।

এদিকে খ্যাতিমান এই ক্রিকেটারের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহল শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন।

খেলা

আপনার মতামত লিখুন :