নারায়নগঞ্জে থানা ফাঁড়িতে বসানো হয়েছে স্বয়ংক্রিয় মেশিনগান

7

নারায়ণগঞ্জে হেফাজত ইস্যুতে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড ও সহিংসতা রোধে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে পুলিশ। জেলার সাত থানা, ১৩টি ফাঁড়ি ও তদন্ত কেন্দ্রের সামনে বিশেষ নিরাপত্তা চৌকি স্থাপন করা হয়েছে। সেখানে বসানো হয়েছে স্বয়ংক্রিয় অত্যাধুনিক লাইট মেশিনগান (এলএমজি)।

বুধবার (৭ এপ্রিল) রাত থেকে থানায় নিরাপত্তার অংশ হিসেবে গুরুত্ব অনুসারে থানা, ফাঁড়ি ও তদন্তকেন্দ্রে এলএমজি পোস্ট ও সিমেন্টের বস্তা দিয়ে বিশেষ ধরনের প্রতিরোধ ব্যবস্থা স্থাপন করা হয়েছে। পাশাপাশি বাড়ানো হয়েছে পুলিশ সদস্যের সংখ্যা। এসব চৌকিতে ২৪ ঘণ্টা দায়িত্বপালন করছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) রাত ও শুক্রবার (৯ এপ্রিল) সকালে নারায়ণগঞ্জ সদর, ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ, সোনারগা, রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজার থানায় গিয়ে দেখা যায়, থানার ছাদের ওপর গোল করে সিমেন্টের বস্তা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে চৌকি। সেখানে দায়িত্বরত পুলিশের এক সদস্য এলএমজি তাক করে বসে আছেন। থানা ও ফাঁড়ির ফটকের সামনেও নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম জানান, পুলিশ সদর দফতরের নির্দেশনায় জেলার সাত থানা ১৩টি ফাঁড়ি ও তদন্তকেন্দ্রে ওই বিশেষ চৌকি স্থাপন করা হয়েছে।

তিনি জানান, বাড়তি নিরাপত্তার অংশ হিসেবে পুলিশের আওতাধীন সব থানা, ফাঁড়ি, তদন্তকেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোতে ২০টি এলএমজি পোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। এখন থেকে এসব জায়গায় ২৪ ঘণ্টা নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে।

এদিকে, সিলেটের ১৭টি থানাসহ পুলিশ ফাঁড়ি ও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রগুলোতে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। নগরের ছয়টি থানা, চারটি ফাঁড়িসহ প্রতিটি পুলিশ স্থাপনায় বাঙ্কার তৈরি করে সেখানে বসানো হয়েছে অত্যাধুনিক অটোমেটিক লাইট মেশিনগান (এলএমজি) পোস্ট।