দেড় লাখ টাকায় যশোরে স্বামী খুন

চৌধুরী সমুদ্রচৌধুরী সমুদ্র
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  01:29 PM, 02 September 2021

দেড় লাখ টাকান চুক্তিতে খুন হন যশোরের শার্শার ইসরাফিল হোসেন। খুনের পর লাশ কবরস্থানে পুঁতে রাখে খুনিরা। পরকীয়ার বিষয় জেনে যাওয়ায় ইসরাফিলকে টাকার বিনিময়ে খুন করায় স্ত্রী মর্জিনা বেগম।

জানা গেছে,  গত ২৭ আগস্ট বাড়ি থেকে ডেকে এনে ইস্রাফিলকে গলায় গামছা পেঁচিয়ে তাকে হত্যা করা হয়। এর সাত দিন পর তিন জনকে আটক করার পাশাপাশি লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। ওই দিনই শার্শার
কাশিয়াডাঙ্গা গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে বিড়ি শ্রমিক ইসরাফিল হোসেন নিখোঁজ হন। পরে ২৯ আগস্ট তার পরিবারের পক্ষ থেকে একটি জেনারেল ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

এরপর তদন্তে নেমে যশোর ডিবি পুলিশের এসআই মফিজুল ইসলাম সন্দেহভাজন হিসেবে একই গ্রামের নুর আলম (৪২), মোশারফ হোসেন (৪৫) ও মর্জিনা বেগমকে (৩২) আটক করেন। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুঁতে রাখা লাশটি গত ১ সেপ্টেম্বর উদ্ধার করা হয়। আজ বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) প্রেস ব্রিফিং করে খুনের এই রহস্য উদযাটনের খবর জানায় পুলিশ। ব্রিফিংয়ে বলা হয়, আটক মর্জিনার এক ভাই বিদেশে থাকেন। তার স্ত্রীর সাথে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন ইস্রাফিল। এজন্য তাকে হত্যার পরিকল্পনা করেন মর্জিনা। হত্যার জন্য তিনি মোশারফের সাথে দেড় লাখ টাকার চুক্তি করেন। পরিকল্পনা অনুযায়ী ইস্রাফিলকে বাড়ি থেকে ফোন করে ডেকে এনে হত্যা করা হয়। হত্যার আগে তাকে মাদক সেবন করিয়ে অজ্ঞান করা হয়। এই হত্যা মিশনে অংশ নেন নুর আলম ও মেহেদী নামে এক যুবক। মেহেদী ওই গ্রামে ঘরজামাই হিসেবে বসবাস করেন। তাকে এখনো আটক করা সম্ভব হয়নি।

যশোর জেলা পুলিশ সুপারের কনফারেন্স রুমে এই প্রেস ব্যিফিং করা হয়।
ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার-ডিএসবি) জাহাঙ্গীর আলম সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) বেলাল হোসাইন, যশোর ডিবি পুলিশের ওসি রুপন কুমার সরকার প্রমুখ।
প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, হয়।
হত্যার ঘটনায় শার্শা থাকায় একটি মামলা করেছেন নিহত ইস্রাফিলের স্ত্রী রোজিনা বেগম। মামলায় আটক তিনজন ছাড়া আরও তিনজন ও অজ্ঞাত দুই-তিনজনকে আসামি করা হয়েছে।

 

আপনার মতামত লিখুন :