জয়তু নুরুল হক নুরু

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  10:16 PM, 13 March 2019

বহু অপেক্ষা এবং অনেক নাটকীয়তার পর ডাকসু নির্বাচন সম্পন্ন হয়ে গেলো ৷ নানাভাবে বিতর্কিত করে ডাকসু নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিশেষ মহল কতো বিচিত্র পন্থার যে আশ্রয় নিলো একদিনেই তাতে বড় একটা ইতিহাস লিখে ফেলবেন হয়তো কোনো এক প্রতিক্রিয়াশীল ঐতিহাসিক ৷ কোটা আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নুরু বিপুল ভোটে ভিপি পদে নির্বাচিত হলেন ৷ নুরু মিয়াকে অভিনন্দন ৷ যেভাবে ছাত্রলীগকে জড়িয়ে বহুমুখী অপপ্রচার চালানো হলো বা হচ্ছে তা এক বিস্ময়কর চ্যালেঞ্জ ৷ ছাত্রলীগেরও উচিত বিতর্কিত অবস্থান থেকে নিজেকে মুক্ত করা এবং নিজস্ব ঐতিহ্যকে সবসময়ই সমুন্নত রাখা ৷ নুরুল হক নুরু-এর ভিপি নির্বাচিত হওয়ার মধ্য দিয়ে ছাত্রলীগেরও শেখার আছে অবশ্যই এবং সরকারের কাছেও একটি গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ ৷

ছাত্রলীগেরও অনেক বদনাম আছে কিন্তু প্রমাণিত অপপ্রচারগুলোর কাছে ছাত্রলীগের বদনামগুলো যেনো দাঁড়াতেই পারেনি ৷ কোটা আন্দোনকারীদেরকে অর্থসহ বিভিন্নরকম সহযোগিতা ছাত্রশিবির বা জামায়াত করেছে এমন প্রচারণাও আছে ৷ ছাত্রলীগ সরকার সমর্থিত একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হওয়ায় তাদের কর্তৃক যেকোনো অপকর্মের দায় সরকারের উপরেই বর্তায় ৷ তাই ছাত্রলীগের উপর একটি চাপ থেকেই যায় এবং বর্তমান প্রজন্মের ছাত্রলীগ কর্মীরা সে বিষয়ে নিশ্চয়ই সচেতন আছেন বলেই মনে করা যেতে পারে ৷ তবে এসব বিষয়ে অবশ্যই সরকারের দিকনির্দেশনা আছে ৷

কোটা আন্দোলনের নেতৃত্ব দেয়া সহ নানারকম জুলুম নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে নুরু মিয়াকে ৷ নুরু মিয়ার প্রতি দেশবাসীর একটি অনুভূতি সৃষ্টি হয়েই আছে আগে থেকেই ৷ ডাকসুর নির্বাচনে নুরু মিয়াকে বিপুল ভোটে ভিপি নির্বাচিত করায় জনগণের একটা দায় কিছুটা হলেও মোচন হলো ৷ ডাকসুর ভোটের আগে বা ভোটের দিন এবং ভোটের পরেরদিনেও বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর উত্তপ্ত ছিলো বেশ ৷ কিন্তু ছাত্রলীগ সভাপতি শোভনের নুরুকে অভিনন্দন জানানোর পর নিশ্চয়ই পরিস্থিতি অনেকটা শান্ত ৷ সকল ছাত্রের আন্তরিক সহাবস্থানে সকল অন্যায় ও বৈষম্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকুক তারুণ্যের পথচলা এটাই কাম্য ৷

পরিতাপের বিষয় এটিই যে , ডাকসুর নির্বাচনকে ঘিরে যেরকম অপপ্রচার এবং ইমোসনাল ব্লাকমেইলিং করা হলো তা সত্যিই ন্যাক্কারজনক ৷ নিঃসন্দেহে ভিপি পদটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ আর ছাত্রলীগ ভোট ডাকাতি করে প্রায় সব পদেই জিতলো শুধু ভিপি পদটি ছাড়া ? সিল মারা ব্যালোটের বস্তা ধরা পড়ার বিষয়টিও স্বচ্ছ নয় এবং এবিষয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে বক্তব্যও এসেছে ৷ আগাগোড়াই ব্যালোটের বিষয়টি যে সাজানো একটি চক্রান্ত সে বিষয়ে আর কোনো সন্দেহ নেই ৷
সময় যত গড়াবে প্রকৃত সত্য হয়তো ততোই সামনে এসে দাঁড়াবে ৷

এরইমাঝে বহুমাত্রিক বুদ্ধিজীবি এবং সুবিখ্যাত টকশোসিয়ান অধ্যাপক নজরুল ইসলামের একটা বক্তব্যে অবাক না হয়ে পারা যায় না ৷ তিনি বলেছেন সদ্য নির্বাচিত ভিপি নুরু মিয়ার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর তারুণ্যের ছাপ দেখতে পাচ্ছেন ৷ নুরু মিয়ার তেজস্বিতা আছে সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না কিন্তু নজরুল সাহেব কেনো নুরু মিয়ার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর তারুণ্যের ছবি দেখবেন ! নজরুল সাহেব নুরু মিয়ার মধ্যে জিয়াউর রহমানের ছাপ কেনো দেখতে পাচ্ছেন না ? আপাদমস্তক বিএনপির জাতীয়তাবাদী চেতনা লালনকারী একজন বুদ্ধিজীবি নজরুল সাহেবের এমন প্রচারণা কেনো ? তিনি কী এসব বলে আরও ভিন্ন কোনো চক্রান্তের ফাঁদ পাততে চলেছেন ? এসব বুদ্ধিজীবি বিভ্রান্তির উপরেই বসবাস করতে পছন্দ করেন বরাবরই ৷

নুরু মিয়া তাঁর নিজস্ব মেধা এবং যোগ্যতা দিয়ে তাঁর নেতৃত্বকে মহিমান্বিত করবেন এটাই প্রার্থনা ৷ কে কার ছায়া কিভাবে দেখছেন কেনোইবা দেখছেন সেটা যাঁরা দেখছেন তাঁরাই দেখুন ৷ নুরু মিয়া আপন গতিতে এগিয়ে চলুন ৷

জয়তু ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরু !

লেখক:বাস রায়

বাংলাদেশ

আপনার মতামত লিখুন :