চৌগাছায় সেপটিক ট্যাংক প্রাণ নিলো পরিচ্ছন্নতা কর্মী পিতা-পুত্রের

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  07:51 PM, 16 August 2021

>>পেটের ক্ষুধা মেটাতে কাজে এসে জীবন গেল:পরিবারে শোকের ছায়া
চৌগাছা (যশোর)প্রতিনিধি:
যশোরের চৌগাছায় বর্জ্য পরিস্কার করতে সেপটিক ট্যাংকের ভেতর নেমে প্রাণ গেল পিতা-পুত্রের। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা তাদের লাশ উদ্ধার করেছে। অক্সিজেন সংকটে তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তার। যারা প্রাণ হারিয়েছেন তারা হলেন- বাবা মধু ঋষি (৪৬) ও ছেলে সাগর ঋষি (২৫)। তারা চৌগাছা সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ কয়ারপাড়া গ্রামের ঋষি মহল্লার বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, সোমবার সকাল ৭ টার দিকে চৌগাছা যশোর সড়ক-সংলগ্ন সিংহঝুলী দফাদার বাড়ির জনৈক হাদিউজ্জামানের সেপটিক ট্যাংকের ময়লা পরিস্কার করতে যান পরিচ্ছন্ন কর্মী মধু ঋষি। তিনি সেপটিক ট্যাংকের মধ্যে নামার পর তার কোন সাড়াশব্দ পাওয়া যায় না। খবর পেয়ে ছেলে সাগর ঋষি ও তার মা ঘটনাস্থলে আসেন। এ সময় পিতার সাড়া শব্দ না পেয়ে ছেলে সাগর ট্যাংকের ভেতর নেমে আর উঠতে পারেননি। খবর পেয়ে সকাল সাড়ে ৯ টায় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে নিহতদের লাশ উদ্ধার করে।
প্রত্যক্ষদর্শী জানান, সকাল ৭টার দিকে মধু ঋষি ও তার সহযোগীরা ওই সেপটিক ট্যাংকটি পরিষ্কার করতে যান। কোনোভাবে মধু ঋষি দেড় ফুট বাই দেড় ফুট মুখ দিয়ে ট্যাংকের মধ্যে পড়ে যান। সংবাদ পেয়ে ৫-৭ মিনিট দূরত্বের নিজ বাড়ি থেকে ছেলে সাগর ঋষি ও মধু ঋষির স্ত্রী ঘটনাস্থলে যান। সেখানে গিয়ে মায়ের কথামতো বাবাকে উদ্ধার করতে ছেলে সেপটিক ট্যাংকে নামেন। তিনিও উঠে না এলে স্থানীয়রা যশোর ফায়ার সার্ভিসে সংবাদ দেন। ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে এসে বাবা-ছেলের লাশ উদ্ধার করে।
ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে ট্যাংক থেকে বাবা ও ছেলের লাশ উদ্ধার করি। সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে আমাদের অভিজ্ঞতা থেকে ধারণা করছি।
থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বিপ্লব সরকার বলেন, মরদেহ দু’টি হেফাজতে নিয়ে প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।
থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম কিবরিয়া জানান, মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে বাবা ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যুতে ওই পরিবার ও ঋষি মহল্লায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

খুলনা বিভাগ

আপনার মতামত লিখুন :