ঘূর্ণিঝড় ইয়ানের তাণ্ডবে মোরেলগঞ্জে ক্ষয়ক্ষতি ১৩ কোটি টাকা

22

>>৭০০ পরিবারে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিলো নৌবাহিনী
মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি:বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ঘূর্ণিঝড় ইয়াস ও পূর্ণিমার জোয়ারে অতিরিক্ত পানির চাপে ভেরিবাঁধ, সড়ক, মৎস্য, বসতঘরসহ বিভিন্ন খাতে প্রায় ১৩ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ৭শ’ পরিবারের মাঝে নৌবাহিনীর তরফ থেকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। রবিবার বেলা ১১ টার দিকে নৌবাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত থেকে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেন। এছাড়া ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে ত্রাণ সহয়তার প্রস্তুতি চলছে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন রোববার আবারও নদীর তীরবর্তী ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ রোকনুজ্জামান, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক, যুবলীগ নেতা অ্যাড. তাজিনুর রহমান পলাশ এ সময় তাঁর সাথে ছিলেন।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের ভেরিবাঁধ ভেঙ্গে তিনটি ইউনিয়নের ৮টি গ্রামে এখন সরাসরি নদীর পানি ওঠানামা করছে। পঞ্চকরণের দেবরাজ গ্রামের শতশত লোক ওয়াবদার ভেরিবাঁধ মেরামতে কাজ করছেন। এছাড়াও পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডসহ ৬টি ইউনিয়নের কমপক্ষে ১২টি গ্রামে প্রবেশ করেছে নদীর অধিক লবন পানি। বহু পরিবার এখনো পানিবন্দি অবস্থায় আছেন। বন্ধ রয়েছে রান্নার কাজ।
মোরেলগঞ্জ ও নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নে ৭শ’ পরিবারের মাঝে জরুরি খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছে নৌবাহিনীর একটি দল। নৌবাহিনীর সাব লেফটেনেন্ট জুয়েল চন্দ্র সরকার বলেন, খুলনা নেভাল কমান্ডারের পক্ষ হতে ক্ষতিগ্রস্ত ৭০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জরুরি ত্রাণ সহায়তা সম্পর্কে বলেন, সড়ক, মৎস্য, বিদ্যুৎ, বসতঘরসহ বিভিন্ন খাতে প্রায় ১৩ কেটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে সরকারের তরফ থেকে ১৫০ প্যাকেট খাদ্য সহায়তা ও নগদ ৪৬ লাখ ৬৫ হাজার টাকা পাওয়া গেছে। যা সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মাধ্যমে বিতরণের কাজ চলছে।