গাছে পেরেক ঠুকে ব্যানার-বিজ্ঞাপন বন্ধে বৃক্ষপ্রেমির মানববন্ধন

33

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি:গাছে পেরেক ঠুকে ব্যানার-বিজ্ঞাপন লাগানোর প্রতিবাদে যশোরের চৌগাছায় মানববন্ধন করেছেন এক ব্যক্তি।
রোববার সকাল ঠিক সাড়ে ১০টা থেকে শহরের মুক্তিযুদ্ধ ভাস্কর্য মোড়ে একক মানববন্ধন শুরু করে বেলা ১১ টা পর্যন্ত একটি মাইকে গাছে পেরেক ঠুকে ব্যানার-বিজ্ঞাপন লাগানোর কুফল এবং এটি যে দন্ডনীয় অপরাধ সেটি স্মরণ করিয়ে দিতে থাকেন আক্তারুজ্জামান নামে উপজেলার সুখপুকুরিয়া ইউনিয়নের বর্ণি গ্রামের ওই ব্যক্তি।
পরে চৌগাছা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক অমেদুল ইসলাম তার দাবির প্রতি সহমত জানিয়ে মানববন্ধনে একাত্মতা ঘোষণা করেন।
একক মানববন্ধনে ওই ব্যক্তি একটি লিফলেট প্রচার করেন। যেটিতে লেখা ছিল, ‘গাছে পেরেক ঠুকে বিজ্ঞাপন ও ব্যানার লাগানো দন্ডনীয় অপরাধ। এই ধরণের অপরাধের সাথে জড়িতে ব্যক্তিকে তিন মাসের জেল, সর্বনি¤œ ৫ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকার জরিমানার বিধান রয়েছে। ২০০২ সালের ৭ জুলাই গাছে পেরেক বিদ্ধ করে ব্যানার ও বিজ্ঞাপন না-এই মর্মে মহান জাতীয় সংসদে একটি আইন পাশ হয়। এছাড়াও পরিবেশ আদালতে এ সংক্রান্ত আইন রয়েছে। কিন্তু আমরা কোন আইনই কার্যকর করতে পারিনি। তিনি এ সংক্রান্ত আইনগুলো কার্যকরে যথাযথ কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানান। প্রচারপত্রে তিনি চট্রগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক শেখ বখতিয়ার উদ্দিনের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ‘পেরেক ঠুকলে গাছের জীবনীশক্তি নষ্ঠ হয়ে যায়। কারণ গাছ শেকড়ের মাধ্যমে খাদ্য গ্রহণ করে। পেরেক ঠুকলে খাবার সংগ্রহে বাধা তৈরি হবে আর গাছের ওই অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তা দিয়ে বাকটেরিয়া ও অণুজীব ঢুকে ধীরে ধীরে গাছ মরে যেতে পারে।’
আক্তারুজ্জামান জানান এ বিষয়ে সম্প্রতি তিনি চৌগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট স্মারকলিপি প্রদান এবং ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন।