খুলনা বিভাগে করোনায় একদিনে ৯জনের মৃত্যু

24

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় 9জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভাগের ১০ জেলায় গত ৩২ দিনের মধ্যে এটাই একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর ঘটনা। এরআগে গত ১৯ এপ্রিল এক দিনে 9জনের মৃত্যু হয়েছিল।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে করোনায় সংক্রমিত ১২৮ জন শনাক্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে বিভাগে করোনায় মোট সংক্রমিতের সংখ্যা ৩২ হাজার ৮৬৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯৭ জন। বিভাগে করোনা আক্রান্তের পর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩০ হাজার ৫০২ জন। সুস্থতার হার প্রায় ৯৩ শতাংশ।

খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) মনজুরুল মুরশিদ আজ শুক্রবার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে জানা গেছে, মারা যাওয়া ৯ জনের মধ্যে আছেন খুলনায় ৪, বাগেরহাটে ২ এবং যশোর, নড়াইল ও চুয়াডাঙ্গায় ১ জন করে।

বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট মারা যাওয়া ৬১০ জনের মধ্যে খুলনায় ১৬৫, কুষ্টিয়ায় ১০৯, যশোরে ৭৭, ঝিনাইদহে ৫৫, চুয়াডাঙ্গায় ৫৪, সাতক্ষীরায় ৪৪, বাগেরহাটে ৩৮, নড়াইলে ২৬, মাগুরায় ২৩ ও মেহেরপুরে ১৯ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনাসংক্রান্ত দৈনিক প্রতিবেদনগুলো থেকে জানা যায়, গত দেড় মাসে বিভাগে ১২৪ জন করোনায় মারা গেছেন।

বর্তমানে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাসায় চিকিৎসাধীন আছেন ১ হাজার ৫৯৪ জন। আর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১৬০ জন। এর মধ্যে খুলনা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৪৬ জন, যাদের ৭ জন আছেন নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ)।

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হন চুয়াডাঙ্গায় গত বছরের ১৯ মার্চ। গত বছরের ২৩ জুলাই এ সংখ্যা ১০ হাজার এবং ১২ আগস্ট ১৫ হাজার ছাড়ায়। চলতি বছর ১ জানুয়ারি ২৫ হাজার, ১১ মে শনাক্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ও ১৯ মে রোগীর সংখ্যা সাড়ে ৩২ হাজার ছাড়ায়।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদফতর সূত্রে জানা যায়, জেলাভিত্তিক হিসাবে এ পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৯ হাজার ৭৮৯ রোগী শনাক্ত হয়েছেন খুলনা জেলায়। এর মধ্যে খুলনা শহরেই শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৯৬১ জন।

এছাড়া বাগেরহাটে ১ হাজার ৪৭১, চুয়াডাঙ্গায় ১ হাজার ৯১০, যশোরে ৬ হাজার ৬৪৯, ঝিনাইদহে ২ হাজার ৮৫৬, কুষ্টিয়ায় ৪ হাজার ৭৫৯, মাগুরায় ১ হাজার ২৫০, মেহেরপুরে ৯৫৩, নড়াইলে ১ হাজার ৮৫২ এবং সাতক্ষীরায় ১ হাজার ৩৭৭ জন করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন।