কয়রায় বাবা-মা ও স্কুলছাত্রী মেয়ে খুন

হত্যার মোটিভ জানে না কেউ:খুনিদের আটকের চেষ্টায় পুলিশ

খুলনা ব্যুরোখুলনা ব্যুরো
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  02:50 PM, 26 October 2021
কয়রায় বাবা-মা ও স্কুলছাত্রী মেয়েকে হত্যা

খুলনার কয়রায় বাবা-মা ও তাদের স্কুলছাত্রী মেয়েকে হত্যার পর পুকুরে ভাসিয়ে দেয় খুনিরা। লাশ ভাসতে দেখতে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয় থানায়। তাৎক্ষণিক পুলিশ এসে একই পরিবারের ৩ জনের লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। নৃশংস এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বাগালী ইউনিয়নে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) দিনগত রাতে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে স্থানীয় মাজেদের বাড়ির পাশের পুকুর থেকে ভাসমান অবস্থায় তাদের মরদেহ উদ্ধার করে কয়রা থানা পুলিশ।
নিহতরা হলেন-হাবিবুর রহমান (৩৬), তার স্ত্রী বিউটি খাতুন (২৬) ও একমাত্র মেয়ে হাবিবা খাতুন টুনি (১৩)। মরদেহ উদ্ধারসহ প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করেছেন কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) মোঃ শাহাদাত হোসেন।
তিনি জানান প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে বাবা-মা ও মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর পুকুরে মরদেহ গোপনের চেষ্টা করা হয়। তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য খুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, হাবিবুর পেশায় দিনমজুর, তার স্ত্রী গৃহিনী ও একমাত্র মেয়ে হাবিবা ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ছিলেন। তিন জনের মাথা ও মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। বাগালী ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আব্দুস সামাদ গাজী বলেন, যে তিন জনকে হত্যা করা হয়েছে তারা খুবই সোজা সরল প্রকৃতির মানুষ ছিলেন। তাদের শরীরে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। কি কারণে তাদেরকে হত্যা করা হয়েছে তা ধারণা করতে পারছি না।
কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ রবিউল হোসেন বলেন, হত্যাকা-ের কারণ খুঁজে বের করাসহ জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে। খুলনার সহকারি পুলিশ সুপার (ডি-সার্কেল) মোঃ সাইফুল ইসলাম ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ বিশ্বাস ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছেন।

এদিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ ঘটনার কারণ উদঘাটন বা জড়িত কাউকেই আটক করতে পারেনি।

 

 

আপনার মতামত লিখুন :