কৃষক আন্দোলন নিয়ে মুখ খুললেন মোদি

17

এবিসি ডেস্ক:ভারতের রাজধানী দিল্লিতে গত সপ্তাহে কৃষকদের যে নজিরবিহীন আন্দোলন হয়েছে এর সমালোচনা করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রবিবার এক বেতার ভাষণে তিনি বলেন, ভারতের জাতীয় পতাকাকে যেভাবে অপমান করা হয়েছে তা দেখে পুরো জাতি হতবাক হয়েছে। তার সরকার কৃষির আধুনিকায়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং সেই লক্ষ্যে আরও কিছু পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে বলেও জানান মোদি।

গত ২৬ জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবসে কৃষকেরা পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে লাল দুর্গে ট্রাক্টর নিয়ে বিক্ষোভ করে। এতে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে এক কৃষকের মৃত্যু হয়। কৃষকদের ওই আন্দোলনকে দেশের প্রতি ‘অপমান’ হিসেবে উল্লেখ করার মধ্য দিয়ে কয়েক মাসব্যাপী চলা কৃষক আন্দোলন নিয়ে প্রথম কথা বললেন মোদি।

ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) সম্প্রতি সংসদে তিনটি কৃষি বিল পাস করে৷ নতুন নিয়মের আওতায় এখন আর ফসলের জন্য কোনো নির্দিষ্ট ন্যূনতম দাম নির্ধারণ করতে পারবেন না কৃষকেরা৷ খোলা বাজারের নিয়ম মেনেই ঠিক হবে ফসলের দাম৷ কৃষকদের বক্তব্য, এই নিয়মের কারণে করপোরেট সংস্থাগুলোর প্রভাব বাড়বে, কমবে ফসল ফলানো কৃষকদের অধিকার৷

গত সেপ্টেম্বরে নতুন তিনটি কৃষি আইন পাস হওয়ার পর ভারতের কয়েক লাখ কৃষক এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামে। গত ২৬ জানুয়ারি দেশটির প্রজাতন্ত্র দিবসে তিনটি কৃষক আইন বাতিলের দাবিতে পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে র‌্যালি করে কৃষকেরা। তাদের র‌্যালি ভাঙতে পুলিশ কাঁদানো গ্যাস, লাঠিচার্জ করে। পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে কৃষকেরা দিল্লির প্রাণকেন্দ্র লালকেল্লায় ট্রাক্টর নিয়ে পৌঁছায়। এতে কৃষক-পুলিশ সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় দিল্লি।

আইন নিয়ে সৃষ্টি হওয়া জটিলতা দূর করতে কৃষকদের সঙ্গে ভারত সরকার ইতিমধ্যে ১২ বার বৈঠক করেছে। কিন্তু বৈঠক থেকে উভয় পক্ষ কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি। মোদি সরকার আগামী ১৮ মাস আইন স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু কৃষকরা স্থগিত কিংবা সংস্কার চান না। তারা আইন বাতিল চান।