কারাগার থেকে হাসপাতালে খালেদা জিয়া

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  04:45 PM, 01 April 2019

সমর ভৌমিক/আজাহার মাহমুদ,ঢাকা: সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে টানাপোড়েন কাটলো। সোমবার দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়েই (বিএসএমএমইউ) নেয়া হয়েছে তাঁকে।

এরআগে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বিএসএমএমইউয়ের উদ্দেশে রওনা হয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নিরাপত্তাবেষ্টনীতে থাকা গাড়িবহর।

পুলিশ, র‌্যাব, ফায়ার সার্ভিস ও কারা কর্তৃপক্ষ মিলিয়ে ১০-১২টি গাড়ির একটি বহর বিএসএমএমইউর উদ্দেশে রওনা হয়।
খালেদাকে হাসপাতালে নেয়ার প্রস্তুতি হিসেবে সকাল থেকেই পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের চারপাশের সড়ক বন্ধ করে দেয়া হয়। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয় চারপাশ ঘিরে।

এরআগে গত মাসের শুরুর দিকেও খালেদা জিয়াকে একবার বিএসএমএমইউয়ে নেয়ার কথা উঠেছিল। তবে খালেদা জিয়া রাজি না হওয়ায় তাকে ওই  হাসপাতালে নেয়া হয়নি।

এক বছরের বেশি সময় কারাবন্দি খালেদা জিয়া অসুস্থ দাবি করে বিএনপির পক্ষ থেকে তাঁর সুচিকিৎসার দাবি জানানো হচ্ছিল। তবে খালেদাকে বিএসএমএমইউয়ে চিকিৎসা দেয়ার বিষয়ে আপত্তি করে আসছিলেন খোদ খালেজা জিয়া নিজেই। বিএনপির পক্ষ থেকে বিভিন্ন সময় খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করার দাবি করা হয়েছে।

কারা কর্র্তৃপক্ষ ও আদালত সূত্রমতে, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা দুই মামলায় ১০ ও ৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত খালেদা জিয়া। আপিলে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড বেড়ে ১০ বছর এবং জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিশেষ আদালতে ৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন তিনি।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণার পর পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে খালেদা জিয়াকে বন্দি রাখা হয়। সেখান থেকেই গত ৬ অক্টোবর চিকিৎসকদের পরামর্শে বিএসএমএমইউয়ে নেয়া হয় সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে। টানা এক মাস দুদিন চিকিৎসা নেয়ার পর ৮ নভেম্বর তাকে কারাগারে ফিরিয়ে আনা হয়।

সবমিলিয়ে বিএনপি চেয়ারপার্সনের চিকিৎসার ব্যবস্থা করায় সরকার ও বিএনপির মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে।

বাংলাদেশ

আপনার মতামত লিখুন :