কপোতাক্ষ খননের বছর পার না হতেই পলি জমে ভরাট

এবিসি বাংলা ডেস্কএবিসি বাংলা ডেস্ক
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  09:47 PM, 08 April 2019

*সংবাদ সম্মেলন শেষে সাতক্ষীরার ডিসিকে স্মারকলিপি দিলেন পানি কমিটির নেতারা
সাতক্ষীরা সংবাদদাতা:খননকৃত কপোতাক্ষ ফের পলি জমে ভরাট হয়ে পড়ছে। এরফলে আবারও মরণদশার মুখে পড়ছে ৯০ কিলোমিাটর দীর্ঘ এই নদ।
সঠিক সময়ে কপোতাক্ষর তালা উপজেলার পাখিমারা বিলের টিআরএম প্রকল্পে ক্রসড্যাম না দেয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। কপোতাক্ষ অববাহিকার প্রায় ২৫ লাখ জনগোষ্ঠী আবারও ভয়াবহ জলাবদ্ধতার শিকার হতে পারেন এমন আশংকা স্থানীয়দের।
সোমবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে এ কথা জানান কেন্দ্রিয় পানি কমিটির কর্মকর্তারা। তারা বলেন ২৬২ কোটি টাকা ব্যয়ে কপোতাক্ষ খননের পর ২০১৭ সালে তালার পাখিমারা বিলে চালু করা হয় টিআরএম (টাইডাল রিভার ম্যানেজমেন্ট, জোয়ারাধার) প্রকল্প। নিয়ম অনুযায়ী কপোতাক্ষে ভেসে আসা পলি পাখিমারা বিলে অবক্ষেপিত হয়। এতে নদী যেমন সচল থাকে তেমনি বিলসমুহ পলিমাটি ভরাট হয়ে চাষযোগ্য হয়ে ওঠে।
সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়, গত বছর ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ক্রসড্যাম নির্মাণ করা হলেও এ বছর ৬৪ লাখ টাকা বরাদ্দ পেয়েও কোনো কাজ হয়নি। ফলে কপোতাক্ষে পলি জমতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে নদের এক তৃতীয়াংশ পলিতে ভরাট হয়ে গেছে। বর্ষা মওসুমে তা আরও জটিল আকার ধারন করবে বলে জানান তারা। আগামি এক সপ্তাহের মধ্যে কপোতাক্ষর পাখিমারা টিআরএম প্রকল্পে ক্রসড্যাম নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন তারা।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান কেন্দ্রিয় পানি কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ এবিএম শফিকুল ইসলাম। এ সময় তালা উপজেলা পানি কমিটির সভাপতি ময়নুল হোসেন , সেক্রেটারি মীর জিল্লুর রহমান, অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহি, ডেপুটি মুক্তিয্দ্ধোা কমান্ডার আলাউদ্দিন জোয়ারদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে তারা পানি সম্পদ মন্ত্রী বরাবর তিন দফা দাবি সংবলিত এক স্মারকলিপি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রদান করেন।

খুলনা বিভাগ

আপনার মতামত লিখুন :