ইউরোপ এবং যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন

23
ঢাকা  হযরত  শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

দেশে কোভিড-১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় ইউরোপীয় দেশসমূহ এবং যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশে আসা সকল যাত্রীদের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

কোয়ারেন্টাইন শেষে তাদের কোভিড-১৯ শনাক্তের পরীক্ষা করানো হবে এবং পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ আসলে যাত্রীদের ছাড়া হবে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (সিএএবি) এ নির্দেশিকা জারি করে।

পরবর্তী আদেশ না আসা পর্যন্ত আগামীকাল (৩১ মার্চ) থেকেই এই নির্দেশ কার্যকর করা হবে।

সিএএবি এর বিবৃতিতে বলা হয়, “যুক্তরাজ্যসহ যে কোনও ইউরোপীয় দেশ থেকে বাংলাদেশে আগত যাত্রীদের সরকারী সুবিধাসম্পন্ন বা সরকার অনুমোদিত হোটেলে নিজ খরচে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন কাটাতে হবে”।

এছাড়া ইউরোপ ও যুক্তরাজ্য ব্যতীত অন্যান্য দেশ থেকে আগত যাত্রীরা ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকবেন বলে বিবৃতিতে জানানো হয়।

তবে যদি বিমানবন্দরেই কোভিড -১৯ এর কোন লক্ষণ শনাক্ত হয়ে থাকে, তাহলে সেই যাত্রীকে অবশ্যই নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে (সরকার অনুমোদিত হোটেলে) কাটাতে হবে।

এর পাশাপাশি সকল যাত্রীকে বিমানবন্দরে পৌঁছে করোনা নেগেটিভ সনদ প্রদর্শন করতে হবে। বিমানে ওঠার ৭২ ঘন্টার ভেতর কোভিড-১৯ শনাক্তের পরীক্ষা সম্পন্ন করতে হবে বলে নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়।

গত সোমবার ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে আরও ৫ হাজার ১৮১ জনের দেহে। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৬ লাখ ৮৯৫ এ। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে এটিই এ যাবৎকালের সর্বোচ্চ শনাক্ত।

এছাড়া ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যাও সপ্তাহজুড়ে ওঠানামা করছে। দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত বছরের ২৮ আগস্টের পর এটিই সর্বোচ্চ মৃত্যু সংখ্যা। এ নিয়ে গত ১ বছরে কোভিডজনিত কারণে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৮ হাজার ৯৪৯।

গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণের হার ছিল ১৮ দশমিক ৩৮ শতাংশ ও মৃত্যুহার ছিল ১ দশমিক ৪৯ শতাংশ।