আওয়ামী লীগ নানা কর্মসূচি পালন করছে

20

দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে আওয়ামী লীগ। দলের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের শনিবার (১৫ মে) নিয়মিত অনলাইন ব্রিফিংকালে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ওবায়দুল কাদের ঘোষিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ১৬ ও ১৭ মে দলের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক উপকমিটি তথ্য ও সংবাদচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠান। ১৬ মে সকাল ১১টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। আরও খবর>>আজ ১৭ মে আ’লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৪০তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস

১৭ মে সকাল ১১টায় ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিকেল ৩টায় মহানগর নাট্য মঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা অনুষ্ঠান হবে।

এছাড়াও সারাদেশে মসজিদ, মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় বিশেষ দোয়া ও প্রার্থনার আয়োজন করা হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের আগেই জানিয়েছেন, করোনা সংক্রমণের কারণে তারা এবারও স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন করবে।

প্রসঙ্গত, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার সময় তার দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা বিদেশে ছিলেন। পিতাকে হত্যার পর তারা ভারতসহ একাধিক দেশে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা বিভিন্ন সময়ে দেশে আসতে চাইলে তৎকালীন সরকার তাতে বাধা দেয়। তবে বাধা ভয়-ভীতি উপেক্ষা করে ১৯৮১ সালের ১৭ মে শেখ হাসিনা বাংলাদেশে আসেন। এর আগে ওই বছরই ফেব্রুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত দলীয় কাউন্সিলে তিনি পিতার হাতে গড়া দল আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। দেশে ফেরার পর শেখ হাসিনাকে নানা ধরনের বাধা ভয়-ভীতি অতিক্রম করতে হয়েছে।