অভয়নগরে বিএনপি নেতাকে প্রধান করে মৎস্যজীবী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠন

18

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি:অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের আহবায়ক করা হয়েছে বিএনপি নেতা এস এম রিপনকে। এ ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এস এম রিপন নওয়াপাড়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের ধোপাদী গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাক সরদারের ছেলে। সাংবাদিক নির্যাতনসহ তার বিরুদ্ধে অভয়নগর থানায় কয়েকটি মামলা রয়েছে। ভুয়া এনজিও’র নামে সদস্যদের টাকা আত্মসাতের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
জানা গেছে, গত ১৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগ যশোর জেলা শাখার আহবায়ক মো. আবু তোহা ও সদস্য সচিব মো. সেলিম রেজা স্বাক্ষরিত অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের ৪১ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। ওই কমিটিতে স্থানীয় বিএনপি নেতা এসএম রিপনকে আহবায়ক করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে সাংবাদিক শাহীন আহম্মেদ হত্যা প্রচেষ্টা, অপহরণ, মানবপাচারসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এছাড়া বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম জিয়া, জিয়াউর রহমান, তারেক জিয়া ও তাঁর নিজের ছবি সংযুক্ত ফেসবুক আইডি আছে (আইডির নাম রিপন এস এম)। ওই আইডি থেকে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ‘মিথ্যা, ভিত্তিহীন, বানোয়াট মামলায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া গ্রেপ্তারের হুমকি দেখালে আগুন জ্বলবে’ এমন শিরোণামে কয়েকটি পোস্ট ছাড়া রয়েছে। বিভিন্ন সময় তাঁর ওই আইডি থেকে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে অপ্রচারের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এছাড়া ওই কমিটিতে স্থান পেয়েছে তাঁর ভাই বিএনপি কর্মী সেলিম সরদার ও আমিনুর গাজীসহ কয়েকজন বিতর্কিত ব্যক্তি। যেকারণে অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এস এম রিপনের বিরুদ্ধে ‘দৃষ্টি সেভিংস এন্ড ক্রেডিট কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিঃ’ নামে ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পের মাধ্যমে গ্রাকদের লাখ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে।
বিএনপি নেতা ও রাজঘাট-নওয়াপাড়া শিল্পাঞ্চল শাখা জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদলের সদস্য সচিব রফিকুজ্জামান টুলু জানান, এস এম রিপন ওয়ার্ড বিএনপির কর্মী ছিল। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত এস এম রিপন মুঠোফোনে জানান, বর্তমানে আমার অনেক শত্রু। তারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে।
যশোর জেলা আওয়ামী মৎস্যজীবী লীগের আহবায়ক মো. আবু তোহার মুঠোফোনে কথা হলে তিনি জানান, এস এম রিপনের বিরুদ্ধে অভিযোগ বা সে বিএনপি করে তা আমার জানা ছিল না। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। অভয়নগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ্ ফরিদ জাহাঙ্গীর বলেন, মৎস্যজীবী লীগের কমিটির বিষয়ে আমি কিছু জানি না।
অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক বাবুল বলেন, যশোর জেলা মৎস্যজীবী লীগ আমার নিকট একটি ভালো কমিটি চেয়েছিল। কমিটি তৈরির প্রক্রিয়া চলছে। দুঃখের বিষয় আমাকে না জানিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের দিয়ে একটি আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। যা সংগঠন বহির্ভূত।