অবশেষে যশোর জেলা ছাত্রলীগের আংশিক কমিটির অনুমোদন

10

এবিসি নিউজ:নানা জল্পনা কল্পনার পর অবশেষে যশোর জেলা ছাত্রলীগের আংশিক কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। রবিবার(৪ এপ্রিল) সালাউদ্দিন কবির পিয়াসকে সভাপতি ও তানজীব নওশাদ পল্লবকে সাধারণ সম্পাদক করে ২৩ সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটির তালিকা ঘোষণা করা হয়েছে।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য এই কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন।

কমিটির সহ-সভাপতি করা হয়েছে ইমরান হোসেন, ইয়াসিন আরাফাত তরুণ, আরিফুর রহমান সাগর, শাহাদাৎ হোসেন রনি হাওলাদার, কায়েস আহমেদ রিমু, রাজু রানা, আলী হাসান মোর্জতা রিফাত, আবদুর রউফ পিন্টু ও রুহুল কুদ্দুসকে।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন রিফাতুজ্জামান রিফাত, আসাদুজ্জামান আসাদ, আশিকুর রহমান হৃদয়, ইমন হোসেন শিমুল সরদার ও মাসুদ হাসান কৌশিক। সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে ইলিয়াস হোসেন রিয়াদ, তরিকুল ইসলাম, মারুফ হোসেন, রাকিবুল আলম, এসএম তারভীর আহমেদ রিয়েল ও ফাহমিদ হুদা বিজয়কে।

এরবাইরে শরীফ এ মারুফ পিয়ালকে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য করা হয়েছে।

সংগঠনটির একাধিক সূত্র জানিয়েছে,সর্বশেষ ২০১৭ সালের ১০ জুলাই যশোর জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনের এক সপ্তাহ পর দুই সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। দুই সদস্যের ওই কমিটি দুই বছর দায়িত্ব পালন করলেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনে ব্যর্থ হয়।

উপরোন্ত ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এক ওয়েল্ডিং মিস্ত্রিকে প্রকাশ্যে হত্যা করেন। দুই লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে এই হত্যাকান্ড ঘটে। ঘটনাটি নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠলে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় কমিটি।
এরআগে কমিটি গঠনের সময় সভাপতির বিরুদ্ধে বিবাহিত অভিযোগ ওঠে। পরে নানা ঘটনার মধ্যদিয়ে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ দুটির অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয়।

ওদিকে বুয়েটে এক ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনার জেরে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে সরিয়ে আল নাহিয়ান খান জয়কে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও লেখক ভট্টাচার্যকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব  দেন আ’লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।